নজরদারি চালাতে এসে আইএস জঙ্গির প্রেমে এফবিআই এজেন্ট

0
290

ম্যাগপাই নিউজ ডেক্স : আই এস জঙ্গির ওপর নজরদারি চালাতে এসেছিলেন একজন এফবিআই এজেন্ট। জঙ্গিকে ভাল লেগে যায় তার। বিয়ে করতে মার্কিন মুলুক ছেড়ে তিনি চলে আসেন আইএস ভূমি সিরিয়ায়। এক মার্কিন এজেন্ট এবং আইএস এজেন্টের প্রেমের চর্চা এখন চলছে বিশ্ব জুড়ে।

আর সেই প্রেমের কথা শুনতে শুনতে মনে পড়তেই পারে ১৯৭৭ সালে মুক্তি পাওয়া জেমস বন্ড সিরিজের দশম ছবি ‘‌দ্য স্পাই হু লাভড মি’‌র কথা। প্রবল ক্ষমতাশালী কার্ল স্টরমবার্গ মানব সভ্যতা ধ্বংস করে সমুদ্রের নীচে নতুন সভ্যতার পত্তন করতে চান। স্টরমবার্গকে আটকাতে রুশ এজেন্ট অ্যানিয়া আমাসোভার সঙ্গে পাঠানো হয় ব্রিটিশ গুপ্তচর জেমস বন্ডকে।

এক রুশ এবং এক ব্রিটিশ জোট বাঁধলেও তাদের নিজেদের মধ্যে বিশ্বাসের কোনও জায়গাই প্রথম দিকে তৈরি হয়নি। বরং অবিশ্বাসই বড় হয়ে দাঁড়ায়। আর এখানেই গল্পের মোড়। দু’‌জনের ভাললাগা, ভালবাসা। ঠান্ডা যুদ্ধের আবহে এই রুশ–ব্রিটিশ নারী–পুরুষের উষ্ণ দ্বৈরথ এই সিনেমাকে প্রবল জনপ্রিয় করে। আমাসোভার চরিত্রে লাস্যময়ী বারবারা বাখের অভিনয় চোখে লেগে থাকবে।

সিনেমা যে বাস্তবেও ঘটে। তারই প্রমাণ এফবিআই এজেন্ট ড্যানিয়েলা গ্রিন এবং আইএস জঙ্গি ডেনিস কুপার্টের প্রেম। জঙ্গি ডেনিসের ওপর নজরদারি চালাতেই গ্রিনেকে নিয়োগ করা হয়। ডেনিসের বিরুদ্ধে আবু তালহা আল আলমানি নাম নিয়ে প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার বিরুদ্ধে কুৎসা রটানোর অভিযোগ রয়েছে।

ডেনিস আদতে জার্মানভাষী। আর গ্রিনও তাই। ডেনিসের সঙ্গে বন্ধুত্ব পাঠাতে গ্রিন সাহায্য নেন সোশ্যাল মিডিয়ার। সহজেই ডেনিসের মন জিতে নেন গ্রিন। ২০১৪ সালে এফবিআইকে না জানিয়ে জঙ্গি ডেনিসকে বিয়ে করেন গ্রিনে। পরিস্থিতি বদলায়। আই এসের অত্যাচারে এক সময় সিরিয়া ছেড়ে পালিয়ে যান তিনি। ওয়াশিংটনে গিয়ে তিনি ‘‌ভুল’‌ স্বীকার করেন। মার্কিন আদালতে সন্ত্রাসে মদত দেওয়ার অভিযোগে তাকে দোষী সাব্যস্ত করে। কিন্তু সাজা ঘোষণার সময় ড্যানিয়েলার যুক্তি শুনে থমকে যান বিচারক। প্রেমের কাছে হেরে যায় আইন। মাত্র দু’‌বছরের কারাদণ্ড হয়েছে ড্যানিয়েলার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here