নেইমারের হ্যাটট্রিকে শিরোপা লড়াইয়ে বার্সেলোনা

0
232

ক্রীড়া ডেস্ক : শিরোপা লড়াইয়ে টিকে থাকতে হলে জয়ের বিকল্প নেই জেনেই লাস পালমাসের মাঠে গিয়েছিল বার্সেলোনা। নেইমারের হ্যাটট্রিকে দুর্দান্ত এক জয়ে শেষ ম্যাচ পর্যন্ত আশা বাঁচিয়ে রাখল লুইস এনরিকের দল।

রোববার রাতে ৪-১ গোলের এই জয়ে অপর গোলটি লুইস সুয়ারেসের। একই সঙ্গে হওয়া অন্য ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদও সেভিয়াকে ৪-১ গোলে হারানোয় চির প্রতিদ্বন্দ্বী দুই দলের পয়েন্টই এখন ৮৭। মুখোমুখি লড়াইয়ে এগিয়ে শীর্ষে বার্সেলোনা; কিন্তু এক ম্যাচ কম খেলায় শিরোপা ভাগ্য জিনেদিন জিদানের দলের হাতেই।

ম্যাচটা অবশ্য বার্সেলোনা শুরু করেছিল দারুণ অস্বস্তি নিয়ে। ম্যাচের কয়েক ঘণ্টা আগে গা গরমের সময় ডান পায়ের চোটে ছিটকে যান হাভিয়ের মাসচেরানো। সের্হি রবের্তো আর জেরার্দ পিকে আগে থেকেই নেই। ডিফেন্ডার স্বল্পতায় লা লিগায় প্রথমবারের মতো ব্রাজিলের ২১ বছর বয়সী মারলনকে খেলতে নামান লুইস এনরিকে।

ত্রয়োদশ মিনিটে লিওনেল মেসির জোরালো শট ডি-বক্সে পালমাসের এক খেলোয়াড় ঠেকালে এগিয়ে যাওয়া হয়নি অতিথিদের। তবে ২৫তম মিনিটে দলীয় বোঝাপড়ায় দারুণ গোল পায় বার্সেলোনা।

মাঝমাঠের কাছাকাছি সের্হিও বুসকেতসের ব্যাকহিল দিয়ে শুরু। বল পেয়ে আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা বাঁয়ে বাড়ান সুয়ারেসকে। গোলরক্ষককে একা সামনে পেয়েও শট না নিয়ে উরুগুয়ের এই স্ট্রাইকার বাড়ান ডানে থাকা নেইমারকে। গোল পেতে কোনো সমস্যাই হয়নি ব্রাজিলের ফরোয়ার্ডকে।

দুই মিনিট পরই সুয়ারেসের গোল। এবার সহায়কের ভূমিকায় নেইমার। অনেকটা দূর থেকে নিখুঁতভাবে বল বাড়িয়েছিলেন। এগিয়ে আসা গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে বল জালে পাঠান সুয়ারেস।

বিরতির পর আক্রমণাত্মক শুরু করা স্বাগতিকরা কয়েকটি সুযোগ তৈরি করে। ৬০তম মিনিটে হেসে রদ্রিগসের জোরালো শট ঠেকিয়ে গোল হতে দেননি বার্সেলোনার গোলরক্ষক মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন।

তিন মিনিট পরই অবশ্য গোল পেয়ে যায় পালমাস। ডান দিক থেকে বোয়েটাংয়ের ক্রসে পা বাড়িয়ে বল জালে পাঠান পেদ্রো বিগাস।

লুইস এনরিকের মনে যদি কোনো শঙ্কা জেগে থাকে তা দূর হতেও বেশি সময় লাগেনি। ৬৭তম মিনিটে রাকিতিচের ক্রসে নেইমারের হেডে ব্যবধান বাড়ায় বার্সেলোনা।

চার মিনিট পরই বাঁ দিক থেকে জর্দি আলবার বাড়ানো বল ডান পায়ের নিখুঁত ছোঁয়ায় ডিফেন্ডার আর গোলরক্ষকের মাঝ দিয়ে জালে পাঠিয়ে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন নেইমার।

বুধবার সেল্তা ভিগোর মাঠে খেলার পর আগামী রোববার শেষ রাউন্ডে মালাগার মাঠে নামবে রিয়াল। রোববার একই সময়ে শেষ রাউন্ডের ম্যাচে এইবারের বিপক্ষে ঘরের মাঠে খেলবে বার্সেলোনা।

বার্সেলোনা নিজেদের শেষ ম্যাচ জিতলেও রিয়াল দুই ম্যাচে ৪ পয়েন্ট পেলেই ২০১২ সালের পর প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হবে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here