পাইকগাছায় আগড়ঘাটা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বহিস্কৃক শিক্ষিকার যোগদানকে কেন্দ্র করে পাল্টা-পাল্টি হামলায় শিক্ষকসহ ৭ জন আহত

0
260

পাইকগাছা প্রতিনিধি : পাইকগাছায় আগড়ঘাটা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বহিস্কৃত সহকারী শিক্ষিকা স্বরসতী শীল ওরফে ফাতেমাকে বিদ্যালয়ে পুনরায় যোগদান নিয়ে পাল্টাপাল্টি হামলায় শিক্ষক সহ ৭জন আহত হয়েছে। আহতরা গোপনে বিভিন্ন জায়গায় চিকিৎসা নিচ্ছে। এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যেকোন মুহুর্তে আরো বড় ধরণের সংঘর্ষের আশংকা রয়েছে।
জানা যায়, উপজেলার আগড়ঘাটা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এক দম্পত্তি সহকারী শিক্ষক-শিক্ষিকা হিসেবে বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেন। ঐ দম্পত্তি বিধান চন্দ্র মন্ডল ও স্বরসতী শীল ওরফে ফাতেমা পারিবারিক কলহের কারণে সাংসারিক বিচ্ছেদ ঘটে। তারই জের ধরে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি উক্ত দম্পত্তিকে সাময়িক বহিস্কার করে। তারপর শিক্ষিকা স্বরসতী শীল ধর্মান্তরিত হয়ে ফাতেমা নাম নিয়ে জনৈক এক ড্রাইভারকে বিয়ে করেন। তারপর বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি সহ এলাকায় সচেতন মহল দুটি গ্র“পে বিভক্ত হয়ে পড়ে। যশোর শিক্ষা বোর্ডের নির্দেশে শুক্রবার বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সরদার রোকন উদ্দীন এক জরুরী সভায় শিক্ষিকা স্বরসতী ওরফে ফাতেমাকে বহিস্কারের আদেশ প্রত্যাহার করে শিক্ষা বোর্ডকে অবহিত করে স্বরসতী ওরফে ফাতেমাকে যোগদানের জন্য পত্র দেন। এরই জের ধরে মঙ্গলবার সকাল ১০টায় ৭/৮ জন দুর্বৃত্ত স্বরসতী ওরফে ফাতেমাকে বিদ্যালয়ে যোগদান করতে দেবে না বলে বিদ্যালয়ে চত্ত্বরে অবস্থান করে বিদ্যালয়ের ঘণ্টা বাজিয়ে ছুটি দিলে আগড়ঘাটা বাজারের ব্যবসায়ী ও এলাকার সচেতন মহল একত্রিত হয়ে বহিরাগত দুর্বৃত্তদের ধাওয়া করে এক পর্যায়ে শিক্ষক ইবাদুল, বহিরাগত রাজু, জাহাঙ্গীর, লাভলু, ময়নুল আহত হয়। তারা গোপনে বিভিন্ন জায়গায় চিকিৎসা নিচ্ছে বলে জানা যায়। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছুটিতে থাকায় দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মিহির কান্তি দাশ এসব বিষয়ে কিছু জানাতে অস্বীকৃতি জানান। দুপুর ১টায় উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জয়নাল আবদীনের ০১৭১২-২৬৬৮৭৮ নং মোবাইলে যোগাযোগ করে নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়। বিদ্যালয়ের সভাপতি সরদার রোকন উদ্দীন জানান, শিক্ষা বোর্ডের নির্দেশে শুক্রবার ম্যানেজিং কমিটির সভায় স্বরসতী ওরফে ফাতেমার বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার করা হয়। বিদ্যালয়ের ঘটনাটি ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনাটি অনাকাঙ্খিত। রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এ বিষয়ে কোন পক্ষই আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যেকোন মুহুর্তে বড় ধরণের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা করছে এলাকাবাসী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here