পাইকগাছায় ঘেরা-বেড়া দিয়ে উচ্ছেদের কৌশল!

0
336

বাবুল আক্তার : পাইকগাছায় গত ১ সপ্তাহেও অবরুদ্ধ হয়ে পড়া অসহায় পরিবারটির বন্ধী জীবনের অবসান ঘটেনি বলে জানা গেছে। স্থানীয়রা জানান ভিটেবড়ীর জমির বিরোধে মারপিট ও পাল্টা পাল্টি মামলার জের ধরে বিত্তশালী স্বপন মন্ডল ক্ষমতাবলে ঘেরা-বেড়া দিয়ে তাঁর প্রতিবেশি তপন মন্ডলের পরিবারকে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন। প্রশাসনের হস্তক্ষেপ চেয়ে আটকে পড়া পাররিবারের সদস্যরা বলেন এ ঘটনায় তাদের কোমলমতি শিশুদের মনে বিরুপ প্রভাব পড়ার আশংকা বোধ করছেন। দ্রুত অবরুদ্ধ পরিবারকে মুক্ত করার কথা জানিয়ে এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে বলে ওসি জানিয়েছেন। সংশ্লিষ্ঠ সুত্রগুলো জানিয়েছেন, উপজেলার সোলাদানা ইউপি’র দীঘা গ্রামের রনজিত মন্ডল ও তার প্রতিবেশি তপন মন্ডলের মধ্যে ভিটেবাড়ীর জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এ নিয়ে ইতোপুর্বে দু পক্ষের মধ্যে পাল্টা মামলা, হামলাও মারপিটের ঘটনাও ঘটেছে। এ বিষয়ে তপন মন্ডল অভিযোগ করেণ বাপ-দাদার ভিটে বাড়ি থেকে উচ্ছেদের জন্য প্রতিপক্ষ রনজিত মন্ডল ও তার ছেলে স্বপন দীর্ঘ দিন ধরে চেষ্ঠা করে ব্যর্থ হয়ে ৬ নভেম্বর রাতে বড়ীতে প্রাইভেট পড়ানো অবস্থায় ছেলে দেবপ্রসাদের উপর হামলা চালিয়ে জখম করে । তিনি আরোও বলেন এ ঘটনায় থানায় আমার ও আহত ছেলের নামে উল্টো মামলা দিয়ে হয়রানী করছে এবং সর্বশেষ ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে স্বপন-সুশান্তরা বড়ীর প্রবেশ পথ বন্দ করে চারিদিকে ঘিরে ফেলে তার পারিবারকে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন। গতকাল সকালে সাংবাদিকরা ঘটনাস্হল গেলে ঘেরা-বেড়ায় আটকে থাকা তপন মন্ডলের মেয়ে সুচিত্রা ও কবরি মন্ডল অভিযোগ করেণ মিথ্যা মামলায় তার বাবা-ভাই পালিয়ে বেড়াচ্ছে এবং স্বপন-সুশান্তরা বাড়ী ছাড়ার হুমকি অব্যাহত রেখেছেন। এরা অন্যের চিংড়ি ঘেরের বাধ দিয়ে কষ্টকর চলাচলের কথা জানিয়ে প্রশাসনের কাছে ঘেরা-বেড়া উন্মুক্তের জন্য মানবিক দাবী করেছেন। এ অভিযোগ প্রসঙ্গে স্বপন মন্ডল সাংবাদিকদের সাথে তপনের দখলীয় জমি নিজের দাবী করে বলেন,ঘেরায় বড়ীর প্রবেশ পথ বন্ধ করে এ পরিবারটিকে অন্যত্র চলে যাবার বিকল্প কৌশল অবলম্ভন করেছেন। এ দিকে গতকাল পুলিশের এসআই লিটন কুমার বিশ্বাস ঘটাস্থল পরিদর্শন করে প্রভাশালী স্বপন গংদের দ্বারা তপনের পরিবারটি অবরুদ্ধ থাকার কথা স্বীকার করেছেন। মারপিটসহ এ ঘটনায় স্বপন,শুশান্ত, রনজিত, করুনা মন্ডলের বিরুদ্ধে থানায় মামলার কথা জানিয়ে ওসি আমিনুল ইসলাম বিপ্লব বলেন,একটু ধৈয্য ধরুন অবিলম্বে ঘেরা-বেড়া উন্মুক্ত করা হবে বলে এ প্রতিনিধিকে জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here