পাইকগাছায় শহীদ জিয়া মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের সভাপতির বিরুদ্ধে নিয়োগে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ

0
252

নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল ও সভাপতির অপসারণের সিদ্ধান্ত 

নিজস্ব প্রতিবেদক, পাইকগাছা: পাইকগাছায় শহীদ জিয়া মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল ও সভাপতিকে রেজুলেশনের মাধ্যমে অপসারণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। শনিবারে বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির অনুপস্থিতিতে পূর্ব নির্ধারিত কমিটির সভায় ১১ সদস্যের মধ্যে ১০ সদস্য সর্বসম্মতিক্রমে এ নিয়োগে সভাপতির অর্থ বাণিজ্য, ক্ষমতার অপব্যবহার, অসদাচরণ সহ বিভিন্ন অভিযোগে এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে বলে কমিটির সদস্যরা জানিয়েছেন।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত ০২/০২/২০১৭ইং তারিখে উপজেলার গদাইপুর ইউনিয়নে শহীদ জিয়া মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ মুজিবুর রহমান অবসরে গেলে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের মাধ্যমে শূন্য এ পদে নিয়োগ প্রত্যাশী অনেক প্রার্থী চেষ্টা, তদ্বির চালিয়ে আসছিল। সে অনুযায়ী গত ৩ আগস্ট’১৭ আবেদনকারী ১৪ প্রার্থীর মধ্যে ১০ নিয়োগ প্রত্যাশীপ্রার্থীর পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। কিন্তু ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি শেখ রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে অন্যান্য সদস্যরা একযোগে অভিযোগ তোলেন প্রতিষ্ঠানের সভাপতি দূর্নীতির আশ্রয় নিয়ে একক ক্ষমতাবলে অন্যান্য সদস্যদের মতামত উপেক্ষা করে নিয়োগে অর্থ বাণিজ্য করেছেন বলে জানা গেছে। যদিও সভাপতি শেখ রফিকুল ইসলাম তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে নিজের মতামত তুলে ধরেন। সর্বশেষ ১২ আগস্ট শনিবার বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে কমিটির পূর্ব নির্বারিত সভা সভাপতির অনুপস্থিতিতে কমিটির সদস্য আনিছুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় কমিটির সদস্য মোবারেক গাজী, মোঃ শহিদুল ইসলাম, শেখ সোহেল আহম্মেদ, আশুতোষ হালদার, মাহফুজুল হক, মরিয়ম বেগম, ফাতেমা খাতুন, তপন কুমার মন্ডল ও ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক অঞ্জলী রাণী শীলের উপস্থিতিতে সর্বসম্মতিক্রমে সভাপতি শেখ রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে অর্থ বাণিজ্য, ক্ষমতার অপব্যবহার সহ বিভিন্ন বিষয়ে অভিযোগ উত্থাপন করে এ নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল ও সভাপতিকে অপসারণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন। এ খবর এলাকায় জানাজানির পর নানা শ্রেণী পেশার মানুষের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here