পাইকগাছায় সংখ্যালঘুর দখলে থাকা খাস খাল দখল চেষ্টার অভিযোগ

0
213

পাইকগাছা প্রতিনিধি : পাইকগাছায় বাতিখালী মৌজায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের দখলীয় বাড়ীর সামনে সরকারি খাস খাল দখল চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক আইনজীবীর বিরুদ্ধে। এমপির হস্তক্ষেপে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার পর্যন্ত গড়িয়েছে বলে জানা গেছে। এ নিয়ে যেকোন মুহুর্তে অনকাঙ্খিত ঘটনার আশংকা করা হচ্ছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, বাতিখালী মৌজায় ২২১ দাগে ৩.৬০ একর খাস সম্পত্তি ইতোপূর্বে জনসাধারণের ব্যবহার্য ছিল। এক সময় প্রভাবশালীরা নিলাম ক্রয় করে এ সম্পত্তি বিভিন্ন ব্যক্তির কাছে হস্তান্তর করে। এরমধ্যে স্থানীয় আইনজীবী আবু বকর সিদ্দিক ১২ শতক সম্পত্তি ক্রয় করে ভোগ দখল করে আসছেন। এ বিষয়ে সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কৃষ্ণপদ মন্ডল অভিযোগ করেছেন, তার বাড়ীর সামনে মন্দির সংলগ্ন তাদের দখলীয় সরকারি খাস খালে আইনজীবী আবু বকর সিদ্দিক ইজারার নাম করে দখল চেষ্টা করছেন। ইতোমধ্যে ঘেরা বেড়া দেয়ার চেষ্টা করলে সেটা প্রতিহত করা হয়েছে। সে আরো জানিয়েছেন, ১৯৮৯ সালে এ সম্পত্তি সাবেক উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিহির কান্তি মজুমদার উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে ২০ ধারা মতে ২৭/০৩/৮৯ তারিখে ১নং খাস খতিয়ানে শ্রেণীভূক্ত করেন এবং সেখান থেকে পাইকগাছা আলিম মাদরাসা উন্নয়নে ইজারার মাধ্যমে কেষ্টপদ গংরা দীর্ঘদিন ধরে ভোগদখল করে আসছেন। এ বিষয়ে কেষ্টপদ মন্ডল জানান, তার বাড়ীর সামনে ১৪ শতক এ খাস খালে ভোগদখল থাকাবস্থায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে রাজস্ব দিয়ে আসছেন এবং সর্বশেষ আইনজীবী এ সম্পত্তি দখল চেষ্টা চালিয়ে বিরোধ বাঁধানোর চেষ্টা করছেন। জানা গেছে, এ উদ্ভুত পরিস্থিতিতে পাইকগাছা-কয়রা সংসদ সদস্য আলহাজ¦ এ্যাডঃ শেখ মোঃ নুরুল হকের হস্তক্ষেপ করে জানিয়েছেন, ইতোপূর্বে খাসখালটি প্রভাবশালীরা দখল চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছে এবং যোগসাজসে কেউ যাতে এ সম্পত্তি দখল করতে না পারে তিনি সে বিষয়ে কেষ্টপদ মন্ডলদের আবেদনের প্রেক্ষিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ করেছেন। এ অভিযোগ প্রসঙ্গে এ্যাডঃ আবু বকর সিদ্দিক দখল চেষ্টার অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, এ খাস খাল নিয়ে দু’পক্ষই উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে অভিযোগ করেছি। যা বিচারের অপেক্ষা রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here