পাখি রক্ষায় এক নিবেদিত প্রাণ, তালার শিক্ষক রাশেদ বিশ্বাস

0
399

বি. এম. জুলফিকার রায়হান, তালা : কীটনাশক প্রয়োগ, নির্বিচারে বৃক্ষ নিধন এবং শিকারীদের অপতৎপরতায় পাখি সহ জীববৈচিত্র যখন অস্তিত্ব সংকটের মূখে সে সময় ত্রাতার মত আবির্ভূত হয়ে জীববৈচিত্র রক্ষায় নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে তালার তরুন শিক্ষক রাশেদ বিশ্বাস। বর্তমান শীত মৌসুমে দেশীয় বিভিন্ন প্রজাতীর পাখি সহ অতিথি পাখি শিকারে তৎপর রয়েছে এলাকার একটি মহল। যেখানেই পাখি শিকারের সংবাদ, সেখানেই ছুটে যাচ্ছেন রাশেদ বিশ্বাস। কখনও বুঝিয়ে সচেতনতা সৃষ্টি আবার কখনও শক্তি প্রয়োগ করে পাখিদের জীবন তথা জীববৈচিত্র রক্ষা করে যাচ্ছেন রাশেদ বিশ্বাস। তাঁর দেখা-দেখিতে ইতোমধ্যে এলাকার একাধিক তরুন যুবক উৎসাহিত হয়েছে। তারাও এখন জীববৈচিত্র রক্ষায় কাজ করছে। ইতোমধ্যে প্রভাষক এস.আর. আওয়াল উৎসাহিত হয়ে শিকারীদের কবল থেকে সকল প্রকার পাখি রক্ষায়- তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ফরিদ হোসেন’র নিকট একটি আবেদন করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য তালা থানার ওসিকে নির্দেশ দেন। তালা থানার ওসি মো. হাসান হাফিজুর রহমান পাখি রক্ষার্থে উপজেলার খেশরা ইউনিয়নের শাহাপুর বাজারে সচেতনতামূলক সভা করেছেন। সেখানে তিনি- পাখি শিকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান।
তালা উপজেলার আগোলঝাড়া গ্রামের মধ্যবিত্ত কৃষক পরিবারের সন্তান রাশেদ বিশ্বাস জানান, ২০০৭ সালে খুলনা সরকারি বি.এল. কলেজে ইংরেজী বিভাগে পড়াশুনার পাশাপাশি তিনি পাখি ও জীববৈচিত্র নিয়ে কাজ শুরু করেন। এসময় তিনি ফাঁদ পেতে কিংবা বন্দুক বা ইয়ার গানের মাধ্যমে পাখি শিকারকারীদের বিরুদ্ধে স্থানীয় থানায় অভিযোগ করে কিংবা সচেতনতা বৃদ্ধি করে পাখি শিকারীদের তৎপরতা রোধে কাজ শুরু করেন। সেই থেকে অদ্যবদী তিনি নিজ অর্থ খরচ করে বিভিন্ন এলাকায় যেয়ে পাখি শিকারীদের সচেতন করে যাচ্ছেন। এছাড়া রাশেদ বিশ্বাস এলাকার একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ইংরেজি বিষয়ে শিক্ষকতা করার সুযোগে বিভিন্ন স্কুল-কলেজে ক্যাম্পেইন করে সহজেই শিক্ষার্থীদের জীববৈচিত্র রক্ষায় সচেতন করছেন। সংসার জীবনে উদাসী রাশেদ বিশ্বাস জীববৈচিত্র রক্ষায় প্রতিনিয়ত ছুটে চলেছেন, তালা উপজেলা সহ বিভন্ন উপজেলার গ্রাম থেকে গ্রামান্তরে, মাঠ, বিল, খাল, বন ও জঙ্গলে। এসময় কোনও বন্যপ্রাণী বা পাখি- শিকারীর দ্বারা অথবা অন্য কোনও ভাবে আহত বা অসুস্থাবস্থায় উদ্ধার করতে পারলে সেটিকে তিনি প্রয়োজনীয় চিকিৎসা করান। এজন্য তাকে মাঝে মাঝে অনেকের রোষানলে পড়তে হয়েছে।
রাশেদ বিশ্বাসের পাখি ও বন্যপ্রাণি তথা জীব বৈচিত্র’র প্রতি গভীর ভালবাসার বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার হলে ইতোমধ্যে দেশ ও বিদেশের বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান তাকে নানাভাবে উৎসাহিত করেছেন। অদূর ভবিষ্যতে তিনি সমাজের বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষের সহযোগিতা নিয়ে পাখি শিকারী ও বন্যপ্রাণী নিধনকারীদের বিরুদ্ধে দেশব্যাপী সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলে জীববৈচিত্র রক্ষায় কাজ করতে চান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here