পানি নিস্কাশনের দাবিতে ডিসি অফিস ঘেরাও ভবদহ অঞ্চলের জলভাসী মানুষের

0
96

নিজস্ব প্রতিবেদক : ভবদহ অঞ্চলের জলভাসী শ’ শ’ মানুষ রোববার দুপুরে যশোরের জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে।
ভবদহে টিআরএম চালু, আমডাঙ্গা খাল সংস্কার, হরি, শ্রী, টেকা, মুক্তেশ্বরী নদীর সঙ্গে ভৈরবের সংযোগ, ২১ ও ৯ ভেন্টের মাঝ দিয়ে সরাসরি নদী সংযোগ, নদী ও খালের ওপর সব ধরনের পাটা-বাঁধ অপসারণের দাবিতে তারা অবস্থান করে। ভবদহ পানি নিষ্কাশন সংগ্রাম কমিটির উদ্যোগে এই কর্মসূচি পালন করা হয়।
এরপর কমিটির একটি প্রতিনিধি দল যশোরের জেলা প্রশাসক মো. তমিজুল ইসলামের কাছে স্মারকলিপি দেন।
স্মারকলিপি হাতে পেয়ে জেলা প্রশাসক তার দোতলার অফিস থেকে নিচে নেমে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের আশ্বস্ত করেন, তাদের দাবি দাওয়া প্রধানমন্ত্রীর কাছে যথাযথভাবে পৌঁছে দেওয়া হবে।
বেলা ১২টার দিকে ভবদহ অঞ্চলের শ’ শ’ নারী-পুরুষ মিছিল সহকারে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে জড়ো হন। অবস্থান চলাকালে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে নেতারা বলেন, গত তিন মাস ধরে তাদের অঞ্চলে জলাবদ্ধতার সমস্যা চলছে। এরই মধ্যে তলিয়ে গেছে হাজার হাজার হেক্টর ফসলের ক্ষেত, মাছের ঘের। পানি উঠে এসেছে ঘর-বাড়িতে। এ অবস্থায় চরম দুর্ভোগে রয়েছেন জেলার ৪০ গ্রামের কয়েক লাখ মানুষ।
সমাবেশে বলা হয়, এই অবস্থা চলতে থাকলে এই অঞ্চলের মানুষ নিঃস্ব হয়ে যাবে। সেক্ষেত্রে করোনাকে উপেক্ষা করেই তাদের পথে থাকতে হবে। প্রয়োজনে তারা সব ধরনের ভোট বর্জন করতে বাধ্য হবেন বলে জানিয়ে দেন।
নেতারা বলেন, ভবদহের সমস্যা প্রায় ৬০ বছরের। জলাবদ্ধতা নিরসনের নামে জনপ্রতিনিধি ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা লুটপাট ও বাণিজ্য করে চলেছেন। স্থানীয়রা এর থেকে পরিত্রাণ পেতে স্থায়ী সমাধান চান। এজন্য সেনাবাহিনীর মাধ্যমে পরিকল্পিত জোয়ারাধার প্রকল্প বাস্তবায়ন ও পানি বের হওয়ার অন্যতম পথ আমডাঙ্গা খালটি ফের খননের মাধ্যমে প্রশস্ত করার দাবি জানান তারা।
সংগঠনের আহ্বায়ক রণজিৎ বাওয়ালীর সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো বক্তৃতা করেন কমিটির উপদেষ্টা ইকবাল কবির জাহিদ, সদস্যসচিব অধ্যাপক চৈতন্য পাল, মুক্তিযোদ্ধা গাজী আব্দুল হামিদ, শেখরচন্দ্র বিশ্বাস, ইলিয়াস হোসেন, সুকৃতি রায়, শিরিন সুলতানা সোহেলী, কার্তিক বকশী প্রমুখ।