প্রতারনার মামলায় আটক চৌগাছার রোস্তমপুর দাখিল মাদ্রাসার সহকারি সুপার আব্দুল আলিমক

0
91

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোর চৌগাছার রোস্তমপুর দাখিল মাদ্রাসার সহকারি সুপার আব্দুল আলিমকে প্রতারনার মামলায় মঙ্গলবার আটক করেছে। বুধবার তাকে আদালতে আদালতে সোপর্দ করা হলে পরিবারের পক্ষ থেকে টাকা পরিশোধ করায় বাদী মামলা প্রত্যাহার করে নেয়ায় তিনি মুক্তি পেয়েছেন।
মামলার অভিযোগে জানা গেছে, যশোর শহরের বেজপাড়া এলাকার রিয়াজ উদ্দিন আহম্মেদের পূর্বপরিচত রোস্তমপুর দাখিল মাদ্রাসার সহকারি সুপার আব্দুল আলিম। তিনি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকরি দিয়ে থাকেন বলে তাকে জানান। রিয়াজ তার ফুপাতো বোনকে একটি চাকরি দেয়ার শুপারিশ করেন। এ সময় আব্দুল আলিম তার বোনকে প্রাইম ব্যাংকে চাকরি দেয়ার প্রস্তাব দেন। আলিম চাকরি দিতে ১ লাখ টাকা লাগবে বলে রিয়াজকে জানান। তার প্রস্তাবে রাজি হয়ে রিয়াজ উদ্দিন ২০১৯ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি তার বাসায় ডেকে আব্দুল আলিমকে ৫০ হাজার টাকা দেন। তিন মাসের মধ্যে চাকরি দেয়ার পর বাকি ৫০ হাজার টাকা দিতে হবে বলে ও জানিয়েছিলেন আব্দুল আলিম। এরপর বেশ কয়েক মাস অতিবাহিত হলেও আব্দুল আলিম তার বোনকে ব্যাংকে চাকরি দিতে পারেননি। অবশেষে আব্দুল আলিমের কাছে টাকা ফেরত চায়লে না দিয়ে ঘোরাতে থাকেন। একপর্যায়ে ওই বছরের ২১ সেপ্টেম্বর সকলে তিনি তার লোকজন সাথে নিয়ে মাদ্রাসায় যান। আব্দুল আলিম তখন মাদ্রাসার সুপারসহ কয়েকজনকে স্বাক্ষী রেখে ২১ অক্টোবরের মধ্যে টাকা পরিশোধ করবেন বলে একটি অঙ্গীকারনামা লিখে দেন। পরবর্তীতে পাওয়না টাকা না দেয়ায় রিয়াজ উদ্দিন মিঠুন প্রতারণার অভিযোগে ২০ নভেম্বর আদালতে মামলা করলে আসামির প্রতি সমন জারির আদেশ দেন। আব্দুল আলিম ধার্য দিনে আদালতে হাজির না হওয়ায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়। সোমবার চৌগাছা থানা পুলিশ আব্দুল আলিমকে আটক করে আদালতে সোপর্দ করেন। এরপর পরিবারের পক্ষতে বাদী রিয়াজ উদ্দিন মিঠুনের পাওনা টাকা দেয়ায় তিনি মামলা প্রত্যাহার করে নেন। ফলে জুডিসিয়াল ম্যজিস্ট্রেট আদালত ২ এর বিচারক তাকে এ মামলার দায় হয়ে অব্যহতি প্রদান করেছেন।