ফাস হলো যশোর জেলা গোয়েন্দা শাখার এএসআই মেহেদীর কৃত্তি

0
301

কৃষককে দুইদিন আটকে রেখে নির্যাতন পূর্বক ১লাখ ১ হাজার টাকা উৎকোচে মুক্তি দেওয়ার খবর ফাঁস

বিশেষ প্রতিনিধি : জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশের এএসআই মেহেদী হাসানের বিরুদ্ধে এক কৃষককে ধরে দু’দিন আটকে রেখে অমানুষিকভাবে নির্যাতন মুখে দু’ দফায় ১লাখ ১হাজার টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। নির্যাতন চালিয়ে টাকা নেওয়ার ঘটনায় পুলিশের উধ্বর্তন কতৃপক্ষকে জানানোর প্রস্তুতি গ্রহন করেছে বলে সূত্রগুলো জানিয়েছেন।
যশোরের চৌগাছা উপজেলার বর্নি গ্রামের গ্রামের আনার উদ্দিনের ছেলে নাসির উদ্দিন জানান,গত শনিবার ২৯ জুলাই দিবাগত গভীর রাত আনুমানিক ২ টার সময় জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)এর এএসআই মেহেদী হাসান ও কনস্টেবল রকিব উদ্দিন ঘুমন্ত নাসির উদ্দিনকে ডেকে তোলে। পরে তাকে বাড়ি হতে পরিবারের সদস্যদের সামনে চোখ বেঁধে জেলা ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে আসে। রাত পৌনে ৩ টার সময় জেলা ডিবি কার্যালয়ে আনার পর পিঠ মোড়া দিয়ে নাসির উদ্দিনকে হ্যান্ডকাপ দিয়ে বেঁধে নীচে শুয়ে অমানুষিকভাবে নির্যাতন শুরু করে। এএসআই মেহেদী তার ব্যক্তিগত মোবাইল ফোন দিয়ে নাসির উদ্দিনের পরিবারের সদস্যদের সাথে যোগাযোগ করে ওই রাতে ৩লাখ টাকা দাবি করে। টাকা দাবির সাথে সাথে মোবাইলে নাসির উদ্দিনকে নির্যাতনের শব্দ শুনায়। এক পর্যায় রোববার নাসির উদ্দিনের আপন ভগ্নিপতি আলম ৬০ হাজার টাকা প্রদান করলেও নাসির উদ্দিনকে না ছেড়ে পুনরায় নির্যাতন শুরু করে। পরবর্তীতে সোমবার নাসির উদ্দিনের মামাতো ভাগ্নিপতি মহেশপুরের রবিউলের মাধ্যমে ৪০ হাজার টাকা ও পরে নাসির উদ্দিনকে দুই দিন রেখে খাওয়ানোর খরচ বাবদ আরো ১হাজার টাকা গ্রহন করে সোমবার বেলা ২ টায় আলম ও রবিউলের কাছে প্রদান করেন। নাসির উদ্দিন জেলা গোয়েন্দা শাখা থেকে ছাড়া পাওয়ার পর যশোর জেনারেল হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা গ্রহন করেছেন। নির্যাতনের কারনে সে এখনও চরমভাবে অসুস্থ্য হয়ে পড়েছে। সূত্রগুলো জানিয়েছেন,এএসআই মেহেদীর ব্যক্তিগত মোবাইল ফোন ট্যাকিং করলে নাসির উদ্দিনকে গ্রেফতারের পর থেকে তার পরিবার ও আত্মীয়স্বজনদের সাথে যোগাযোগ ও টাকা চাওয়ার বিষয়টি প্রকাশ পাবে। নাসির উদ্দিন বর্নি গ্রামে মাঠে চাষাবাদ করে জীবন যাপন করে। জেলা পুলিশের দাবি নাসির উদ্দিন ফেনসিডিল কারবারের সাথে জড়িত। এ ব্যাপারে এএসআই মেহেদীর ব্যক্তিগত মোবাইল নাম্বারে মঙ্গলবার দুপুরে ফোন করা হলে তিনি রিসিভ না করায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here