বলৎকারে ব্যর্থ হয়ে যশোরের চয়নকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়

0
39

নিজস্ব প্রতিবেদক : বলৎকারে ব্যর্থ হয়ে মিরাজ হোসেন ওরফে চয়নকে (১৭) গলা চেপে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়। চয়ন চৌগাছা উপজেলার দিঘলসিংহা গ্রামের সবুজ হোসেনের (৪০) ছেলে। মাইক্রোবাস চালক চৌগাছা উপজেলার বহিলাপোতা গ্রামের মৃত ইসমাইল হোসেনের ছেলে রাজু হোসেনকে (২৩) আটকের পর (পুলিশ ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন) পিবিআই এই রহস্য উদঘাটন করে।

পিবিআইয়ের পুলিশ সুপার রেশমা শারমিন জানান, এস আই শরীফ এনামুল হক সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্সের সহায়তায় অভিযান পরিচালনা করে মাইক্রোবাস চালক রাজু হোসেনকে মঙ্গলাবার (১৪ জুন) বেলা আড়াইটায় চৌগাছা উপজেলার ঝিকরগাছা ছুটিপুর রোড পৌরসভা গেট বটতলা মোড় থেকে গ্রেফতার করা হয়। রাজুকে আটকের পর তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ি হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত গামছা, মোবাইল সীম ও একটি মাইক্রোবাস উদ্ধার করা হয়। সোমবার (১৩ জুন) সকালে চৌগাছা উপজেলার মাধবপুর গ্রামস্থ জলকার মাধবপুর ধোনারখাল কপোতাক্ষ নদে উত্তর পাড়ে পানির কিনারায় একটি বস্তাবন্দি অবস্থায় মিরাজ হোসেন @ চয়নের মৃতদেহ উদ্ধার হয়। মৃতদেহ উদ্ধারের পর চয়নের পিতা সবুজ হোসেন ১৪ জুন মঙ্গলবার চৌগাছা থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। মামলায় আসামি অজ্ঞাত দেখানো হয়। পিবিআই স্ব উদ্যোগে মামলাটির তদন্ত ভার গ্রহন করে এস আই শরীফ এনামুল হকের উপর অর্পন করে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এস আই শরীফ এনামুল হক বলেন, আটক রাজু হোসেন প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, রাজু পেশায় একজন মাইক্রোবাস চালক। মিরাজ হোসেন চয়ন হেলপার হিসেবে কাজ করতো। ঘটনার দিন ১২ জুন রাত ৮ টায় মাইক্রো চালক রাজু মোবাইলে নিহত চয়নকে ডেকে নিয়ে চয়নের বাড়ির সামনে মাইক্রোবাস রেখে মাইক্রোবাসে বসে দুজনে ভিডিও গান দেখে। এক পর্যায়ে রাত গভীর হলে (রাত ২টা) চালক রাজু হোসেন বলৎকারের উদ্দেশ্যে চয়নকে জড়িয়ে ধরতে যায়। চয়ন বিষয়টি বুঝতে পেরে মাইক্রো থেকে নেমে যায়। এমন কাজ আর করবে না বলে চালক রাজু চয়নকে বুঝিয়ে মাইক্রোতে উঠিয়ে মোবাইলে ভিডিও দেখতে দেয়। চালক রাজু পুনরায় একই কাজ করার চেষ্টা করলে ঘুম আসছে বলে চয়ন গাড়ির পিছনের ছিটে গিয়ে শুয়ে পড়ে। চালক রাজুও পিছনের ছিটে গিয়ে বলৎকারের উদ্দেশ্যে পিছন থেকে চয়নকে জড়িয়ে ধরে। এতে চয়ন বাধা দেয়। রাজু গামছা দিয়ে চয়নের গলা পেচিয়ে ধরলে আবারো বাধা দেয়। এরপর রাজু, চয়নের গলা চেপে ধরলে চয়ন শ্বাসরোধ হয়ে মারা যায়। চয়নের মৃত্যুর পর রাজু লাশ বস্তায় পুরে বস্তার মধ্যে দুটো ইট দিয়ে বস্তার মুখ বেধে চৌগাছা উপজেলার মাধবপুর গ্রামস্থ জলকার মাধবপুর ধোনারখাল কপোতাক্ষ নদের উত্তর পাড়ে নিয়ে পানিতে ফেলে দেয়। বুধবার আটক রাজু হোসেনকে জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ সালমান আহমেদ শুভর আদালতে সোপর্দ করা হলে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করে।