বিরাট কোহলির ‘প্রতারণা’ বাংলাদেশের পরাজয়ের কারণ : অস্ট্রেলিয়ার গণমাধ্যম

0
30

অনলাইন ডেস্ক : বিরাট কোহলির ‘প্রতারণা’ বাংলাদেশের পরাজয়ের কারণ : অস্ট্রেলিয়ার গণমাধ্যম

কোহলি যে পয়েন্টে দাঁড়িয়ে ছিলেন তার পাশ দিয়ে বলটি চলে গেলেও তিনি তা স্ট্রাইকারের প্রান্তে থ্রো করার ভান করেছিলেন। ছবি : ফক্স স্পোর্টস’র

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভে বুধবার শ্বাসরুদ্ধকর লড়াইয়ে ভারতের কাছে ৫ রানে হেরে যায় বাংলাদেশ। এতে ‘ফেক ফিল্ডিং’ করে বিতর্কের জন্ম দেন ভারতের ক্রিকেট সুপারস্টার বিরাট কোহলি।

খেলা অস্ট্রেলিয়ার মাঠে হয়েছে। ফেলে দেশটির প্রায় সব প্রধান গণমাধ্যম প্রায় প্রতিদিনই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করছে। গণমাধ্যমগুলোতে বুধবার এবং আজকের শিরোনাম বিরাট কোহলির ‘ফেক ফিল্ডিং’ নিয়ে করা হয়েছে। অধিকাংশ গণমাধ্যমেই এর নিন্দা করা হয়েছে। কিছু গণমাধ্যমকে এটিকে ‘প্রতারণা’ হিসেবে অভিহিত করেছে।

সিডনি মর্নিং হেরাল্ড, নিউজ ডট কম, সেভেন স্পোর্টস, নাইন স্পোর্টসসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে এ নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে যে, ‘বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ভারতের প্রতারণামূলক জয়ে ‘ফেক ফিল্ডিং’ এর জন্য বিরাট কোহলির কি শাস্তি হওয়া উচিত ছিল না?’
ইনিংসের সপ্তম ওভারের সময় বাংলাদেশি ব্যাটার লিটন দাস অক্ষর প্যাটেলের বলকে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে ছুঁড়ে দেন। আরশদীপ সিং বলটি স্ট্রাইকারের প্রান্তে ফিরিয়ে দেন।

কোহলি-যে পয়েন্টে দাঁড়িয়ে ছিলেন তার পাশ দিয়ে বলটি চলে গেলেও তিনি তা স্ট্রাইকারের প্রান্তে থ্রো করার ভান করেছিলেন।

গণমাধ্যমগুলোর খবরে বলা হয়েছে, আইসিসি আইন ৪১.৫ এর অধীনে বলা হয়েছে, ‘ইচ্ছাকৃত বিভ্রান্তি, ব্যাটসম্যানের প্রতারণা বা বাধা’ দেওয়া আইন লঙ্ঘন। সে হিসেবে কোহলিকে ৫ রানের শাস্তি দেওয়া উচিত ছিল, যা ছিল বাংলাদেশের জন্য পরাজয়ের ব্যবধান।

গণমাধ্যমগুলোতে প্রকাশ করা হয়েছে কোহলির ভুয়া বল নিক্ষেপের ভিডিও। বলা হয়েছে, ‘এমন একটি প্রতারণা কীভাবে আম্পায়ারদের নজর এড়িয়ে গেল?

সেভেন স্পোর্টস শিরোনাম করেছে, বিরাট কোহলির অদ্ভুত ‘প্রতারণার’ আম্পায়ারদের নজরে পড়েনি’। গণমাধ্যমটি লিখেছে, ‘আইনে ভারতের জন্য ৫ রানের জরিমানা হওয়া উচিত ছিল, যা ছিল তাদের সঠিক জয়ের ব্যবধান।’

‘ভুয়া ফিল্ডিংয়ের’ অভিযোগে অভিযুক্ত কোহলি’,। এই শিরোনাম করেছে সিডনি মর্নিং হেরাল্ড।

নাইন স্পোর্টস ব্যানার শিরোনাম করেছে, ‘‘বাংলাদেশ বিরাট কোহলিকে ‘অন্যায়’ পদক্ষেপে ‘ভুয়া ফিল্ডিংয়ের’ অভিযোগ করেছে এবং যা প্রমাণিত।’’