বিশ্বকাপের আরও কাছে মাশরাফিরা

0
195

ক্রীড়া ডেস্ক : সংখ্যাটা ৩ হয়ে গেল। পরশু ডাবলিনে আয়ারল্যান্ড ত্রিদেশীয় সিরিজের শেষ ম্যাচে বাংলাদেশ নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে দেওয়াতেই এটা হলো। এর আগে আইসিসি ওয়ানডে দলীয় র‍্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের পেছনে ছিল বিশ্বকাপ ক্রিকেটজয়ী দুটি দল—ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তান। পরশু ভগ্নাংশের ব্যবধানে পেছনে পড়ল বিশ্বকাপজয়ী আরেক দল শ্রীলঙ্কাও। বাংলাদেশ উঠে গেছে ছয়ে।

ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ে নিজেদের ইতিহাসের সেরা অবস্থানে উঠে ২০১৯ বিশ্বকাপে সরাসরি জায়গা করে নেওয়ার পথে অনেকটাই এগিয়ে গেল বাংলাদেশ। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ আটে থাকতে পারলেই জায়গা পাকা ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠেয় ওই বিশ্বকাপে। অবশ্য সর্বশেষ র‍্যাঙ্কিংয়ের পঞ্চম স্থানে থাকা ইংলিশরা ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সেরা আটের বাইরে চলে গেলে অন্য হিসাব। সে ক্ষেত্রে ইংল্যান্ডের সঙ্গে সরাসরি বিশ্বকাপে যাবে ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ের প্রথম সাতটি দল। সেই সম্ভাবনা নেই বললেই চলে, কারণ ১১১ পয়েন্ট নিয়ে অনেক এগিয়ে ইংল্যান্ড।

সর্বশেষ র‍্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের রেটিং পয়েন্ট ৯৩, শ্রীলঙ্কারও তাই। তবে বাংলাদেশ এগিয়ে ভগ্নাংশের ব্যবধানে। চুলচেরা হিসাবে বাংলাদেশের রেটিং পয়েন্ট ৯৩.৩, লঙ্কানদের ৯২.৮। র‍্যাঙ্কিংয়ের অষ্টম দল পাকিস্তানের পয়েন্ট ৮৮, নবম দল ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৭৯। বাংলাদেশকে সরাসরি বিশ্বকাপে খেলার আশা দিচ্ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে পয়েন্টের ব্যবধানটাই।

আগামী ১ জুন শুরু চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে গ্রুপ পর্বের সব ম্যাচ হারলেও টুর্নামেন্টে সুযোগ না পাওয়া ক্যারিবীয়দের চেয়ে প্রায় ১০ পয়েন্টে এগিয়ে থাকবে বাংলাদেশ। যদিও টুর্নামেন্টে কোনো ম্যাচ না জিতলে আটে নেমে যাওয়ার শঙ্কাও আছে বাংলাদেশের। এরপর ৩০ সেপ্টেম্বরের আগে বাংলাদেশের ক্রিকেট সূচিতে কোনো ওয়ানডে ম্যাচ নেই। যার অর্থ অবস্থান যা-ই হোক বাংলাদেশের পয়েন্ট কমার সুযোগ নেই।

তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের রেটিং পয়েন্ট বাড়িয়ে নেওয়ার সুযোগ থাকছে। আগামী চার মাসে ১১টি ওয়ানডে খেলবে দুবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। চ্যাম্পিয়নস ট্রফির পর ভারতের সঙ্গে দেশের মাটিতে পাঁচ ম্যাচের সিরিজ। সেপ্টেম্বরে আয়ারল্যান্ড সফরে একটি ও ইংল্যান্ড সফরে পাঁচটি ওয়ানডে খেলবে ক্যারিবীয়রা। যার সর্বশেষটি ২৯ সেপ্টেম্বর সাউদাম্পটনে।

আইসিসি ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিং

রেটিং পয়েন্ট

১ (-) দক্ষিণ আফ্রিকা ১২২

২ (-) অস্ট্রেলিয়া ১১৮

৩ (-) ভারত ১১৭

৪ (-) নিউজিল্যান্ড ১১৪

৫ (-) ইংল্যান্ড ১১১

৬ (‍+১) বাংলাদেশ ৯৩

৭ (-১) শ্রীলঙ্কা ৯৩

৮ (-) পাকিস্তান ৮৮

৯ (-) ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৭৯

১০ (-) আফগানিস্তান ৫২

১১ (-) জিম্বাবুয়ে ৪৬

১২ (-) আয়ারল্যান্ড ৪১
আরও সংবাদ
বিষয়:

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here