বিশ্বকাপে দানব শিকারে প্রস্তুত বাংলাদেশ: আইসিসি

0
68

অনলাইন ডেস্ক : আগামীকাল রবিবার ওমানে ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হবে ওমান ও পাপুয়া নিউগিনি (পিএনজি)। একই দিনে দ্বিতীয় ম্যাচে স্কটল্যান্ডর বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ।

বি’ গ্রুপে পরিষ্কার ফেবারিট বাংলাদেশ হলেও সেই সমীকরণে বিশ্বাস নেই স্কটল্যান্ডের। বিশ্বকাপ শুরুর আগে স্কটিশ কোচ শেন বার্জারের কণ্ঠে আত্মবিশ্বাসী উচ্চারণ, গ্রুপ পর্বে তারা বাংলাদেশকে অন্য দুই প্রতিপক্ষের চেয়ে ওপরে রাখেন না মোটেও।

এদিকে, মাঠের খেলা শুরুর আগে অংশগ্রহণকারী সব দলের সম্ভাবনা-সামর্থ্য নিয়ে প্রতিবেদন করেছে আইসিসি। শুক্রবার প্রকাশিত বাংলাদেশ দলের প্রিভিউ প্রতিবেদনের শিরোনাম করা হয়েছে ‘এখন আর আন্ডারডগ নয়, বিশ্বকাপে দানব শিকারে প্রস্তুত বাংলাদেশ।
বাংলাদেশ দল যে এখন আর শুধুই অংশগ্রহণের জন্য বিশ্বকাপ খেলতে যায় না, সে বিষয়টিই উল্লেখ করেছে আইসিসি। পাশাপাশি বিশ্বকাপে টাইগারদের সম্ভাবনার কথাও উল্লেখ করা হয়েছে।

আইসিসির প্রতিবেদনের বলা হয়েছে, তিন ফরম্যাটের ক্রিকেটে ক্রমাগত উন্নতির মাধ্যমে নিজেদের ওপর থাকা আন্ডারডগ তকমাটি সরানোর কাজটি সফলভাবেই করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপটি তাদের জন্য বড় একটি সুযোগ, এই ফরম্যাটে নিজেদের অগ্রযাতা ও উন্নতি প্রদর্শনের।

বছরে নয়টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ জয়ের মধ্য দিয়ে এবারের বিশ্বকাপটি খেলতে নামছে বাংলাদেশ। তাদের চেয়ে বেশি ১২টি জয় রয়েছে শুধুমাত্র দক্ষিণ আফ্রিকা। গত মার্চে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে সিরিজ হারের পর থেকে রীতিমতো অপ্রতিরোধ্য হয়ে গেছে বাংলাদেশ। এসময় জিম্বাবুয়ে, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ জিতেছে তারা।

প্রথম পর্বের গ্রুপ ‘এ’তে শ্রীলঙ্কা মুখোমুখি হবে নেদারল্যান্ডস, নামিবিয়া ও আয়ারল্যান্ডের। আর ‘বি’ গ্রুপে রয়েছে বাংলাদেশ, প্রতিপক্ষ স্কটল্যান্ড, পাপুয়া নিউগিনি ও ওমান।

প্রথম রাউন্ডের গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে পারলে সুপার-১২তে বাংলাদেশ দল সুযোগ পাবে ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে খেলার। এই গ্রুপের ষষ্ঠ দলটি হবে প্রথম রাউন্ডের গ্রুপ ‘এ’ রানার্স-আপ।

তবে বাংলাদেশ প্রথম রাউন্ডে গ্রুপ রানার্স-আপ হলে কিন্তু প্রতিপক্ষ পরিবর্তন হয়ে যাবে। তখন দ্বিতীয় রাউন্ডে লাল-সবুজ জার্সিধারীদের অবস্থান হবে গ্রুপ-১-এ। সুপার-১২তে এই গ্রুপে রয়েছে ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ।