বেনাপোল পৌরসভা নির্বাচনে বিপুল ভোটে নৌকা জয়ী

0
115

নিজস্ব প্রতিবেদক : বেনাপোল পৌরসভায় নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট প্রদান করেন ভোটাররা। এ নির্বাচনে বিপুল ভোটে নৌকার প্রার্থী মোঃ নাসির উদ্দীন জয়লাভ করেন। তিনি নৌকা প্রতিক নিয়ে পেয়েছেন 13 হাজার 265 ভোট। আর তার নিকতম প্রতিদ্বন্দ্বী সতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মফিজুর রহমান সজন মোবাইল প্রতিক নিয়ে পেয়েছেন 3 হাজার 825 ভোট। পরাজিত প্রাথী সজনের ভোটের ব্যবধান 9 হাজার 440 ভোট।এছাড়া আর সংরক্ষিত আসনে মহিলা কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন, ১ নং আসনের জুলেখা আনারস, ২ নং আসনের মোছাঃ মর্জিনা মিম চশমা, ৩ নং আসনের কামরুন্নাহার আন্না চশমা প্রতীক নির্বাচিত হয়েছেন। সাধারণ আসনে পুরুষ কাউন্সিলর ১ নং ওয়ার্ড থেকে সুলতান আহমেদ বাবু উটপাখি, ২ নং ওয়ার্ড থেকে শরীফুল ইসলাম পাঞ্জাবি, ৩ নং ওয়ার্ড থেকে মিজানুর রহমান উটপাখি, ৪ নং ওয়ার্ড থেকে কাজী শাহীনুল ইসলাম ব্রিজ, ৫ নং ওয়ার্ড থেকে মোঃ আজিম উদ্দীন গাজী পানির বোতল, ৬ নং ওয়ার্ড থেকে মোঃ আসাদুজ্জামান উটপাখি, ৭ নং ওয়ার্ড থেকে মোঃ মজনুর রহমান ব্রিজ, ৮ নং ওয়ার্ড থেকে মোঃ হাসানুজ্জামান তাজিন ব্রিজ ও ৯ নং ওয়ার্ড থেকে মোঃ কামাল হোসেন পাঞ্জাবি নির্বাচিত হয়েছেন।

সকাল থেকেই বেনাপোল পৌরসভায় স্বতঃস্ফূর্তভাবে কেন্দ্রে কেন্দ্রে ভোটাররা লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে ভোট প্রদান করেন। এ সময় নারী-পুরুষ ভোটারদের সরব উপস্থিতিতে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করে।প্রথমবারের মতো ইভিএমে (ইলেক্ট্রনিক ভোর্টিং মেশিন) ভোট দিয়ে খুশি ভোটাররা। তবে সবচেয়ে বেশি খুশি হয় তরুণ ভোটাররা। সার্বক্ষণিক ভোট পর্যবেক্ষণ করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।সেই সঙ্গে সর্বমহল থেকে স্বস্তি প্রকাশ করা হয়।

বেনাপোল পৌরসভায় ভোটগ্রহণকালে কোনো ধরনের সহিংস ঘটনা ঘটেনি। কোনো প্রার্থীই ভোটগ্রহণের অনিয়ম নিয়ে তেমন অভিযোগ করতে পারেনি। তবে দু’একটি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী-সমর্থকদের মধ্যে ছোটখাটো দু’একটি বাকবিতন্ডার ঘটনা ঘটেছে। শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট হওয়ায় স্বস্তি প্রকাশ করেছে বেনাপোল পৌরসভায় সর্বস্তরের মানুষ।

এর ফলে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে নিরপেক্ষ ভোটের উদাহরণ সৃষ্টি করে নিজেদের ইমেজ ও গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধির পাশাপাশি সর্বমহলের কাছে নিরপেক্ষতার পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে সক্ষম হয়েছে ইসি। এ নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়ায় বর্তমান সরকারেরও ইমেজ বৃদ্ধি পায়। দলীয় সরকারের অধীনেও যে সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে বেনাপোল পৌরসভায় শান্তিপূর্ণ ভোট তা প্রমাণ করেছে বলে অভিজ্ঞ মহল মনে করছেন।
বেনাপোল পৌরসভায় নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়ার জন্য স্থানীয় প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতাও ছিল চোখে পড়ার মতো। নির্বাচনী এলাকায় সর্বত্র ছিল আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ত্রিস্তরের নিরাপত্তা বেষ্টনী। তাই নির্বাচনের সার্বিক পরিবেশ ছিল শান্তিপূর্ণ।

9নং ওয়ার্ডের ভোটার শাহীন উদ্দীন জানান, ইভিএমে ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়া নিয়ে চিন্তায় ছিলাম। ইভিএমের মাধ্যমে ভোট দিতে পেরে বেশ আনন্দ লাগছে। কোনো ধরনের ঝামেলা ছাড়াই ভোট দিতে পেরেছি। ছোটবেলা থেকে শুনে আসছি ভোট ব্যালট পেপারে হয়। কিন্তু এবার ভোট দিয়েছি ব্যালট সিল ছাড়া।বিষয়টা অন্যরকম লাগছে।

ভোট গণনা শেষে আনিছুর রহমান সিনিয়র জেলা নির্বাচন অফিসার, যশোর বেসরকারি ওই ফলাফল ঘোষণা করেন। বেনাপোল পৌরসভার ৯ টি ওয়ার্ডের ১২ টি ভোট কেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা ৩০ হাজার ৩৮৫ জন। তারমধ্যে পুরুষ ভোটারের সংখ্যা ১৫০৪৪ জন ও নারী ভোটারের সংখ্যা ১৫৩৪১ জন। তারমধ্যে ১৭,৫৯৮ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। এরমধ্যে অবৈধ ভোটের সংখ্যা ৭৭। নির্বাচনে প্রায় ৫৭.৯১ শতাংশ ভোট পড়েছে। এই প্রথমবার বেনাপোল পৌর নির্বাচনে ইভিএম এর মাধ্যমে নতুন অভিজ্ঞতার সাথে সাধারণ ভোটাররা তাদের ভোট দিয়েছেন।