বেনাপোলে স্কুল ছাত্র পারভেজ আত্মহত্যার মামলায় ফাঁসানোর চেষ্টার অভিযোগে সন্দেহ মুলক নাইট গার্ড মফিজুর আটক”।

0
370

আরিফুজ্জামান আরিফ : বেনাপোল পোর্ট থানার বাহাদুরপুর সোনামুখি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেনীর ছাত্র পারভেজ (১৪)এর স্কুল ড্রেস এর না থাকার কারনে অভিমানে আত্মহত্যার ২১ দিন পর নাটকীয় ভাবে স্কুলের নাইট গার্ডকে সন্দেহ মুলক ভাবে আটক করে কোর্ট হাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ।ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল সোমবার সন্ধ্যায়। আত্মহত্যাকারী পারেেভজের মা পারভিন খাতুন জানান, পারভেজের স্কুল এর (ড্রেস) পোশাক না থাকায় তাকে স্কুলের শিক্ষকরা স্কুল থেকে গত ৪/০৪/১৭ তারিখে বের করে দেয়। এরপর পারভেজ বাড়ি এসে তার কাছে স্কুল ড্রেসের জন্য বায়না ধরে।

তখন তাকে কয়েকদিন অপেক্ষা করতে বলি,তার বাবার বিদেশ থেকে টাকা না পাঠানো পর্যন্ত।
এরপর সে বাড়ি থেকে সাইকেল নিয়ে বেরিয়ে যায় আর বাড়ি ফেরেনি।পরদিন তার লাশ পাওয়া যায় তার স্কুলের পিছনে। এ ব্যাপারে বেনাপোল পোর্ট থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।যার নং ০৬, তারিখ ৪/০৪/১৭ইং। একটি সুত্র জানায়,ঐদিন পারভেজ কাগজপুকুর মোড়ের আব্দুল মুজিদের দোকান থেকে পাউরুটি ও দানাদার জাতীয় কীটনাশক ক্রয় করেছিল।

স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি জুলফিকার আলী বলেন ঐদিন রাত্রে নাইটগার্ড বাড়িতে গিয়েছিল।সে সুযোগে ঐ ছাত্র স্কুলে প্রবেশ করে। এরপর সকালে তার লাশ পাওয়া যায়। তবে স্কুল ছাদের উপর একটি বসার একটি পাটি, পাউরুটি এবং দানাদার জাতীয় কীটনাশক পড়ে ছিল।

নাইটগার্ড মফিজুর রহমানের ভাই রফিকুল ইসলাম বলেন,এলাকার আভ্যান্তরীন একটি কোন্দলের জের ধরে মফিজুরকে আসামি করার চেষ্টা চালাচ্ছে এলাকার একটি কুচক্রী মহল। তারা ষড়যন্ত্রের স্বীকার।
এ ব্যাপারে বেনাপোল পোর্ট থানার এস,আই আশরাফের কাছে পারভেজ হত্যায় নাইটগার্ড মফিজুর সাথে জড়িত কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন,তদন্ত না করে কিছু বলা যাবে না। এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here