বেনাপোল চেকপোষ্ট কাষ্টমসে ডিউটি ফ্রি সপে অবৈধ মাদক ব্যবসা

0
338

আশানুর রহমান আশা, (বেনাপোল): বেনাপোল সীমান্তে মাদক ব্যবসা এখন চোরাই পথে নয়,চেকপোষ্ট কাষ্টমসে লাইসেন্সধারী ডিউটি ফ্রি সপে ভারতীয় পাসপোর্টযাত্রীদের কাছে বিক্রয়ের নিয়ম থাকলেও ঐ সপের কর্মচারীরা অবৈধ অর্থের বিনিময়ে কালোবাজারে বিক্রি করছে বিদেশী মদ ও সিগারেট। কোম্পানীর চোখ ফাঁকি দিয়ে হাতিয়ে নিচেছ হাজার হাজার টাকা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,বেনাপোল চেকপোষ্ট কাষ্টমসে ডিউটি ফ্রি সপে পাসপোর্ট যাত্রীদের কাছে মদ ও সিগারেট বিক্রয়ের নিয়ম থাকলেও কতিপয় সরকারী কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে শত শত কার্টুন সিগারেট ও মদ বেশী দামে কালোবাজারীদের কাছে বিক্রি করছে।অথচ ভারতীয় কোন যাত্রী মদ ও সিগারেট ক্রয় করতে গেলে ঐ মালামাল থাকলেও কর্তৃপক্ষ ধমক দিয়ে বলে মালামাল নাই।সম্প্রতি ভারতীয় যাত্রী বিপ্লব বিজয় দত্ত,যার পাসপোর্ট নং-কে-৪৯১৮৪০২ ও নিমাই মন্ডল পাসর্পোট নং-কে-১২০৫৯৮১ ডিউটি ফ্রি সপ থেকে বেরিয়ে এসে জানান,ইজিলাইট সিগারেট ক্রয় করতে গেলে কর্তৃপক্ষ ৮৫০টাকা দাম চায়। ঐ যাত্রী ৯ডলার সমপরিমান টাকা দিতে চাইলে কর্তৃপক্ষ সিগারেট বিক্রি হবে না বলে যাত্রী কে বের করে দেন। একই ভাবে নিমাই মন্ডল ভ্যাট ৬৯ একটি বোতল ক্রয় করতে গেলে ১৩০০টাকা দাম চাই,অথচ ঐ যাত্রী নির্ধারিত মূল্য ১৩ ডলার দিতে চাইলে ম্যানেজার অতিরিক্ত ২০০টাকা বেশী চায়।অতিরিক্ত বেশী টাকা  না দিতে পারায় ক্রয় করতে পারলো না ঐ ভারতীয় যাত্রী।এ সমস্ত মালামাল ডলারের বিক্রয়ের নিয়ম থাকলেও কর্মচারীরা আইনের পাশ কাটিয়ে বেশী মুল্যে বিক্রয় করে থাকে।এক কার্টুন ইজি লাইটসিগারেট ৯ডলারেও বিক্রয়ের নিয়ম থাকলেও সেটা অবৈধ ভাবে কালো বাজারিদের নিকট বিক্রয় করে সাড়ে আটশত থেকে নয়শত টাকায়।যা ৯ ডলারের মূল্য দাড়ায় মাত্র ৭৩০টাকা। বাড়তি টাকা পকেটস্থ করছে ম্যানেজার ।

এ ব্যাপারে ভারতীয় পাসপোর্ট যাত্রী বলেন, কাষ্টমসে অবস্থিত ডিউটি ফ্রি সপের কিছু অসাধূ ব্যক্তি,কোম্পানির চোখ ফাঁকি দিয়ে কতিপয় ব্যাক্তিদে ম্যানেজ করে অবৈধ হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচেছ।এ ব্যাপারে  ভুক্তভোগিরা কোম্পানির  প্রতি সু-দৃষ্টি কামনা করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here