ব্যাটিং বিপর্যয়ে সিরিজ জয়ের অপেক্ষা বাড়লো বাংলাদেশের

0
33

অনলাইন প্রতিবেদক : তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে সিরিজ জয়ের মিশনে নেমে চরম ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়লো বাংলাদেশ। ১২৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ১৯ ওভার ৪ বলে সব ইউকেট হারিয়ে ৭৬ রানে থেমে যেতে হয় টাইগারদের। এর আগে, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ব্যাট করতে নেমে দারুণ শুরুর ইঙ্গিত দেন টাইগার ব্যাটসম্যানরা। তবে ছন্দপতন হয় ব্যাটসম্যানদের।

দলীয় ২৩ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ১৫ রান করে আউট হয়ে যান ওপেনার লিটন দাস। ওয়ানডাউনে নেমে মেহেদী হাসানও টিকতে পারেননি। মাত্র ১ রান করেই এজাজ প্যাটেলের বলে হেনরি নিকোলসের হাতে ক্যাচ তুলে দেন। এরপর সাকিব নেমে প্রথম বলেই দ্বিতীয় বলেই ক্যাচ তুলে দেন।

এর আগে, টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেটের বিনিময়ে ১২৮ রান করেছে সফরকারীরা। ইনিংসের তৃতীয় ওভারে বোলিংয়ে এসেই ১০ বলে ৩ চারে ১৫ রান করা বিপজ্জনক ওপেনার ফিন অ্যালেনকে আউট করেন মোস্তাফিজুর রহমান। মিড-অনে ক্যাচ নেন মাহমুদউল্লাহ।
এরপর জোড়া আঘাত হানেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। এই পেসারের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন ২০ বলে ৩ চারে ২০ রান করা উইল ইয়াং। রিভিউ নিয়েও সিদ্ধান্ত পাল্টাতে পারেনি নিউজিল্যান্ড। ওই ওভারের শেষ বলে আবারও এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন অভিজ্ঞ কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম (০)। আবারও রিভিউ নেয় নিউজিল্যান্ড। কিন্তু আম্পায়ারের সিদ্ধান্তই সঠিক প্রমাণিত হয়।

এরপর আক্রমণে এসে নিজের দ্বিতীয় ওভারে রাচিন রবিন্দ্রকে ফেরান অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। এরপর ১১তম ওভারে কিউই অধিনায়ক ল্যাথামকে কট অ্যান্ড বোল্ড করেন মেহেদী হাসান। ল্যাথামের বিদায়ের পর জমে উঠে হেনরি নিকলস ও টম ব্লান্ডেলের জুটি।

তাদের ৬৬ রানের দুর্দান্ত এক পার্টনারশিপ দলের জন্য উল্লেখযোগ্য স্কোর এনে দেয়। হেনরি ২৯ বলে ৩৬ রান ও ব্লান্ডেল ৩০ বলে ৩০ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন। বল হাতে ২৮ রান খরচায় ২ উইকেট নেন সাইফউদ্দিন। এছাড়া একটি করে উইকেট পান মেহেদি হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মোস্তাফিজুর রহমান।