মণিরামপুরে আবারও ৪র্থ শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণ থানায় মামলা

0
245

উত্তম চক্রবর্ত্তী : মণিরামপুরে আবারও পর এক ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনার রেশ না কাটতেই এবার ৪র্থ শ্রেণীর ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এ ঘটনায়ও এক সাবেক ইউপি মেম্বরের নেতৃত্বে অর্থের বিনিময়ে কথিত শালিসের মাধ্যমে ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টার সময় ইউপি চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপে ভিকটিম উদ্ধারের পর থানায় মামলা হয়েছে। গত মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলার কপালিয়া এলাকার সরকারের আশ্রায়ন প্রকল্পের গুচ্ছ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। উপজেলার মনোহরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও আ’লীগ নেতা মশিউর রহমান সাংবাদিকদের জানান, ১০ বছর বয়সি চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী তার পিতা-মাতার সাথে ওই গুচ্ছ গ্রামে থাকে। ঘটনার দিন সকালে শিশুটির পিতা-মাতা অন্যের ক্ষেতে কাজ করতে যায়। এ সুযোগে একই গুচ্ছ গ্রামে থাকা খোদা বক্স গোলদারের লম্পট পুত্র আজগার গোলদার (৪৫) ওই শিশুকে তার ঘর থেকে পান আনতে বলে। এ সময় ঘরের দরজা বন্ধ করে শিশুর মুখ চেপে ধরে পাষবিক নির্যাতন চালায় নরপশু আজগার। এ ঘটনায় রক্তাক্ত আহত ওই শিশু। এরপর ঘটনার জানাজানি হলে রাতে ওই এলাকার সাবেক মেম্বর সরোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে একটি চক্র কথিত শালিসের আয়োজন করে। চেয়ারম্যান মশিউর রহমান জানান, তিনি ওই শালিসের খবর জানতে পেরে ওই রাতেই তা বন্ধ করেন। এরপর ভিকটিম শিশুসহ তার পিতা-মাতাকে উদ্ধার করে তার (চেয়ারম্যান) বাড়ীতে নিয়ে আসেন। তিনি পুলিশকে খবর দিয়ে গতকাল বুধবার সকালে শিশুসহ তার পিতা-মাতাকে থানায় পাঠান। এ ব্যাপারে মণিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ¬ব কুমার নাথ জানান, শিশু ধর্ষণের ঘটনায় তার মা বাদী হয়ে থানায় মামলা দিয়েছে। তার ডাক্তারী পরীক্ষা এবং আদালতে নিয়ে ম্যাজিষ্ট্রেটের নিকট জবানবন্দি রেকর্ড করানো হবে। তাছাড়া ধর্ষককে আটকের জন্য অভিযান অব্যহত রয়েছে বলে ওসি বিপ¬ব কুমার নাথ জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here