মহেশপুরের পুড়াপাড়া বাজারের খাস জমি এখনও দখলমুক্ত হয়নি,হতাশ এলাকাবাসী 

0
208

নিজস্ব প্রতিবেদক,ঝিনাইদহ :ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার পুড়াপাড়া বাজারের দখল হওয়া লাখ লাখ টাকার সরকারী খাস জমি উদ্ধারের কোন লক্ষন নেই। বরং দিনকে দিন বেড়েই চলেছে বেদখলের তালিকা। বাজারে সাড়ে ২১ বিঘা খাস জমির মধ্যে এখন কোন অবশিষ্ট নেই। সবই দখল হয়ে গেছে।

সরকারী এই জমি বছরের পর বছর ধরে ব্যক্তি বিশেষ মানুষ নিজের মতো করে পাকা ঘর তৈরী করে বিক্রি করে যাচ্ছে। কিন্তু মহেশপুর এসিল্যান্ড অফিস থেকে কোন বাধা দেওয়া হচ্ছে না। অভিযোগ উঠেছে মান্দারবাড়ীয়া (জোঁকা) সহকারী ভূমি কর্মকর্তা আতিয়ার রহমানকে ঘুষ দিয়ে এ সব সরকারী জমিতে পাকা ভবন ওঠানো হচ্ছে। সম্প্রতি আতিয়ার রহমানের ইন্ধনে পুড়াপাড়া বাজারের চুরি পট্টিতে মোঃ নূরুল ইসলাম, মোন্তাজ আলী এবং কাটগড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সামনে ডাঃ মুজিবর রহমান বিনা বাধায় পাকা বিল্ডিং করেছেন । যা পত্রিকায় খবর বের হয়েছে।

সহকারী ভূমি কর্মকর্তার সহায়তা নিয়ে সরকারী জায়গায় পাকা ভবন তৈরী করা নিয়ে এলাকায় ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। তথ্যনুসন্ধান করে জানা গেছে, পুড়াপাড়া বাজারে সরকারী খাস জমি আছে ৭ একর ২২ শতক। কিন্তু বিভিন্ন সময় মান্দারবাড়ীয়া ইউনিয়ন ভূমি অফিসের সহকারী কর্মকর্তার ইন্ধন পেয়ে দখলবাজরা বাজারের খাস জমি দখল করে দোকান ঘর নির্মাণ করতে শুরু করেন। পরবর্তীতে দেখা গেছে ঐ দোকান ঘর গুলো মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে দোকানের মালিকানা অন্যের কাছে বিক্রি করে নতুন করে খাস জমি দখল করে। এ ভাবে তারা একের পর এক খাস জমি দখল করে আর দোকান তৈরী করে বিক্রি করে দেয়।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আশাফুর রহমানকে জানালে তিনি তাৎক্ষনিক তহশীলদার আতিয়ার রহমানকে ঘটনাস্থলে পাঠান। কিন্তু তহশীলদার উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মিথ্যা তথ্য দিয়ে জানায়, সেখানে শুধু মাত্র টিনের ছাউনি ঠিক করছে। ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা গেছে দুইটি ঘর রাতারাতি ১০ ইঞ্চি গাথুনি দিয়ে ছাদের প্লান করে লিন্টন দেওয়া হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মধ্যরাত পর্যন্ত সেখানে কাজ করা হচ্ছে। সরকারী জমিতে চুরি করে ভবন তৈরী করার কারণেই মধ্য রাত পর্যন্ত শ্রমিক দিয়ে কাজ করানো হচ্ছে। এ ব্যাপারে সহকারী ভুমি কর্মকর্তা আতিয়ার রহমান জানান আমার কাছে টিন পাল্টানোর কথা বলেছে। যদি ১০ ইঞ্চি গাথুনি ও লিন্টন দিয়ে থাকে তাহলে ভেঙ্গে দেওয়া হবে। আর মহেশপুরের ইউএনও জানিয়েছেন, আমি যথযথা ব্যবস্থা নিতে সহকারী ভুমি কর্মকতাকে নির্দেশ দিয়েছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here