যশোর খড়কীতে বাড়িতে হামলা-ভাংচুর-লুট বাহিনী প্রধান ডিকুসহ ৯জনের বিরুদ্ধে মামলা

0
61

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোর শহরের খড়কী বামনপাড়ায় সন্ত্রাসী ডিকু বাহিনী ওই এলাকার একটি বাড়ি ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়েছে। এই ঘটনায় ডিকু ও তার তিনভাই বোনসহ মোট ৯জনের নামে কোতয়ালি থানায় একটি মামলা হয়েছে। ডিকু খড়কী এলাকার মতিউর রহমানের ছেলে।
অন্য আসামিরা হলো, ডিকুর দুই বোন রেহেনা (৩২) ও রুনা (৩৫), ভাই জিসান (২২), গজনবী মোক্তারের ছেলে শুভ (৩৫), আব্দুল খালেকের ছেলে রুহুল আমিন (২০), কুদ্দুসের ছেলে মিলন (২২), আব্দুল জব্বারের ছেলে ইমন (২০) এবং আব্দুল জলিলের ছেলে শামীম (২২)। এছাড়া অজ্ঞাত আরো ৪/৫জনকে আসামি করা হয়েছে।
ওই এলাকার মিন্টু হাওলাদারের স্ত্রী হোসনে আরা (৪৮) এজাহারে উল্লেখ করেছেন, আসামিরা তার ছেলে হিরাকে তাদের কথামতো দলে কাজ করতে বলে। কিন্তু হিরা আসামিদের কথা মতো তাদের সাথে কোন কাজ করে না। এতে আসামিরা ক্ষিপ্ত হয়ে হিরাকে ক্ষতি করার সুযোগ খুঁজতে থাকে। গত ২৪ জুলাই সন্ধ্যা ৭টার দিকে আসামিরা পরিকল্পিত ভাবে ধারালো দা, লোহার রড, বাঁশের ও কাঠের লাঠি নিয়ে তার বাড়িতে গিয়ে হিরাকে খুঁজতে থাকে। তাকে না পেয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। তিনি গালি দিতে নিষেধ করায় আসামিরা তার ঘরে ঢুকে বিভিন্ন আসবাবপত্র, টেলিভিশন, শোকেজ ভাংচুর করে। দা দিয়ে টিনের বেড় কেটে ৫০ হাজার টাকার ক্ষতি করে। ঘরের মধ্যে ড্রয়ারে রাখা নগদ ১৫ হাজার টাকা লুট করে। তিনি ঠেকাতে গেলে আসামিরা তাকে কিল ঘুষি মারে এবং পড়নের কাপড় টেনে শ্লীলতাহানী ঘটায়। এ সময় তার চিৎকারে আশেপাশের লোকজন জড়ো হলে আসামিরা ফের হত্যার হুমকি দিয়ে চলে যায়। পরে তিনি যশোর জেনারেল হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হয়।
উল্লেখ, ডিকুর একটি সন্ত্রাসী বাহিনী রয়েছে। ১০/১৫ বছর ধরে ওই এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। তার অত্যাচারে খড়কী বামনপাড়া, কলাবাগান, রেললাইনের ধারের অনেক মানুষ ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। অনেকে এলাকা ছেড়ে অন্যত্র চলে গেছে। এ সময় তার বিরুদ্ধে কোতয়ালি থানায় হত্যাসহ প্রায় দুই ডজন মামলা হয়েছে।