যশোরাঞ্চলে মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিতকরণে পুলিশের ক্যাম্পেইন শুরু

0
183

নিজস্ব প্রতিবেদক : করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায় বিভিন্ন স্থানে সচেতনতামূলক প্রচারণা চালিয়েছে পুলিশ। রোববার তারা মাস্ক ও লিফলেট বিতরণ করে মানুষকে সচেতন করেছেন। সকালে যশোরে করোনা প্রতিরোধে মাস্ক ব্যবহারে উদ্বুদ্ধকরণ ক্যাম্পেইন উদ্বোধন করেন খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি ড. খন্দকার মহিদ উদ্দিন বিপিএম (বার)। এরপর বেলা সাড়ে ১২টার দিকে শহরের দড়াটানা মোড়ে ক্যাম্পেইন করা হয়। মাস্ক বিতরণ শেষে সচেতনতামূলক র‌্যালি বের হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. তমিজুল ইসলাম খান, জিলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাইফুজ্জামান পিকুল, পুুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার বিপিএম (বার), সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহীন, যশোর পৌরসভার মেয়র জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, জাসদের কেন্দ্রীয় কার্যকরী সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা অ্যাড. রবিউল আলম, জাতীয় পার্টির প্রবীণ নেতা অ্যাড. মাহাবুব আলম বাচ্চু, কাউন্সিলর সন্তোষ দত্ত প্রমুখ। পরে মণিহার মোড়ে মালিক শ্রমিক ইউনিয়ন, নিউমার্কেট মোড়ে ব্যবসায়ী ও দোকান মালিক সমিতি, কোতয়ালী থানা মোড়ে বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ ও শংকরপুর মোড়ে কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের সদস্যবৃন্দকে নিয়ে জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ক্যাম্পেইন করেন। এছাড়াও প্রত্যেক থানায় ক্যাম্পেইন করা হয়েছে।

মাগুরা প্রতিনিধি জানান, মাগুরায় মাস্ক বিতরণ শুরু করেছে জেলা পুলিশ। জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম রোববার দুপুরে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। শহরের চৌরঙ্গী মোড়ে শুরু হওয়া এ মাস্ক বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামরুল হাসান, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জয়নাল আবেদিন প্রমুখ।
সাতক্ষীরা অফিস জানায়, সকালে সাতক্ষীরায় জেলা পুলিশের উদ্যোগে শহরের খুলনা রোড মোড়ে এই কর্মসূচি পালিত হয়। এ সময় মাস্কবিহীন পথচারীকে মাস্ক ও জনসচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করেন সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান। উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবু, জেলা পুলিশিং কমিটির সভাপতি আবুল কালাম বাবলা, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি মমতাজ আহমেদ বাপ্পি প্রমুখ।

পুলিশের এক সদস্য মাগুরা শহরের চৌরঙ্গী মোড় এলাকায় মাস্ক বিতরণ করেন। ওই সদস্যের নাম জাহাঙ্গীর আলম। তিনি মাগুরা ট্রাফিক পুলিশের একজন কনস্টেবল।

সকালে যশোরের মণিরামপুর পৌরশহরের কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে থানার অফিসার ইনচার্জ রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে এ কার্যক্রম চালানো হয়। এদিন পৌর বাজারসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়কে চলাচলকারী সাধারণ পথচারী, রিকশা, ভ্যান ও অটোচালক এবং যাত্রীসহ শতাধিক নারী-পুরুষের মাঝে জনসচেতনতামূলক লিফলেট ও মাস্ক বিতরণ করা হয়। থানার অফিসার ইনচার্জ রফিকুল ইসলাম ছাড়াও এ সময় উপস্থিত ছিলেন এসআই আকতারুল ইসলাম, শাহাবুল আলম, শাহিনুল ইসলাম, হাসানুজ্জামান, এএসআই শ্যামল সরকার, কামরুজ্জামান, আব্দুর রহমান প্রমুখ।

পাইকগাছা প্রতিনিধি জানান, খুলনার পাইকগাছা থানায় ওসি এজাজ শফীর নির্দেশে ওসি (তদন্ত) আশরাফুল আলমের নেতৃত্বে পৌর সদরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে লিফলেট, মাইকিংসহ গাড়ির যাত্রী, চালক, হেলপার, পথচারীদের মুখে মাস্ক লাগিয়ে দিয়ে মাস্ক পরার জন্য উদ্বুদ্ধ করেন।

অভয়নগর প্রতিনিধি জানান, যশোর জেলা পুলিশ প্রশাসনের আয়োজনে করোনা সচেতনতা সংক্রান্ত উদ্বুদ্ধকরণ ক্যাম্পেইন সকাল থেকে যশোর-খুলনা মহাসড়কের নওয়াপাড়া বাজারে শুরু করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ্ ফরিদ জাহাঙ্গীর, ভাইস চেয়ারম্যান ডা. মিনারা পারভীন, অভয়নগর থানার ওসি মনিরুজ্জামান, নওয়াপাড়া প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নজরুল ইসলাম মল্লিক, সাধারণ সম্পাদক মোজাফ্ফার আহমেদ প্রমুখ।

মহেশপুর প্রতিনিধি জানান, ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর থানা পুলিশের উদ্যোগে করোনা মোকাবিলায় প্রচারণা ও মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে। সকালে কলেজ বাসস্ট্যান্ডে আলোচনাসভা শেষে মহেশপুর থানা পুলিশের আয়োজনে একটি শোভাযাত্রা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে থানায় এসে শেষ হয়। মহেশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন কোটচাঁদপুর সার্কেলের কর্মকর্তা মোহায়মিনুল ইসলাম, ওসি তদন্ত রাশেদুল আলম, মহেশপুর পৌরসভার মেয়র আব্দুর রশিদ খাঁন, পৌর কাউন্সিলর কাজী আতিয়ার রহমান, মহেশপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুস সেলিম, প্রেসক্লাব মহেশপুরের সভাপতি সরোয়ার হোসেন, সাংবাদিক বিএম আজাদ, অসিম মোদক মনা প্রমুখ।