যশোরের চৌগাছায় স্কুল ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগে শিক্ষককে বহিস্কারের নির্দেশ

0
178

বিশেষ প্রতিনিধি : যশোরের চৌগাছার কাটগড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বিএসসি (উচ্চতর গণিত) শিক্ষক ইসমাইল হোসেনের বিরুদ্ধে নবম শ্রেণির এক ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ওই শিক্ষককে ১২ ঘন্টার মধ্যে বহিষ্কারের নির্দেশ দিয়েছেন চৌগাছা উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা কামরুজ্জামান জাহাঙ্গীর। এর আগেও ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ ওঠায় আর্থিক জরিমানা করা হয়েছিল।
নির্যাতনের শিকার বিজ্ঞান বিভাগের নবম শ্রেণির ওই ছাত্রী ২৯ মার্চ প্রধান শিক্ষক বরাবর লিখিত অভিযোগে বলে, ‘২৮ মার্চ মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটার দিকে স্কুল ছুটির পর কৌশলে অফিস কক্ষে আমাকে ডেকে নেন শিক্ষক ইসমাইল হোসেন। এসময় অফিসের দরজা আধখোলা ছিল। অফিসকক্ষে ঢোকামাত্র আমাকে জাপটে ধরে স্পর্শকাতর অঙ্গে হাত দেন ওই শিক্ষক। এ সময় চিৎকার শুনে স্কুলের ঝাড়ুদার কল্পনারানি ও আয়া সুখতারা বেগম এসে আমাকে উদ্ধার করেন। এর আগেও শিক্ষক ইসমাইল বিভিন্ন সময় আমাকে কুপ্রস্তাব দিয়েছেন এবং আমার দিকে নানা কুঅঙ্গিভঙ্গি করতেন।’
নাম প্রকশে অনিচ্ছুক কয়েকজন অভিভাবক করেছেন, ২০১১ সালের ২ মে স্কুলে যোগদান করার পর থেকেই ওই শিক্ষক শিক্ষার্থীদের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক ব্যবহার করছেন। একাধিকবার তার বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের শ্লীলতাহানি করার অভিযোগ উঠলেও কোনো ব্যবস্থা নেয়নি কর্তৃপক্ষ। ফলে তিনি একের পর এক এমন ঘটনা ঘটিয়েই গেছেন।
তবে শিক্ষক ইসমাইল হোসেন তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগকে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক বলে দাবি করেছেন। বলেছেন, ‘এ সবই মিথ্যা ও ষড়যন্ত্র। স্কুলের শিক্ষকদের মধ্যে গ্রুপিংয়ের কারণে আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে এ অভিযোগ আনা হয়েছে।’
স্কুলের প্রধান শিক্ষক তবিবর রহমান অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে জানান, ছাত্রীর অভিযোগ পেয়ে তিনি উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে অবহিত করেছেন। শিক্ষা কর্মকর্তা অভিযুক্ত শিক্ষককে ১২ ঘণ্টার মধ্যে বহিষ্কার করার নির্দেশ দিয়েছেন।’ স্কুল পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি আমিনুর রহমানও ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।
চৌগাছা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কামরুজ্জামান জাহাঙ্গীর বলেন, ‘আমি ঢাকায় আসার পথে বৃহস্পতিবার সকালে প্রধান শিক্ষক ও স্কুলের সভাপতি যোগাযোগ করলে তাৎক্ষণিকভাবে সংশ্লিষ্ট শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার মৌখিক নির্দেশ দিয়েছি।’
তিনি জানান এর আগেও একবার এক শিক্ষার্থীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে ওই শিক্ষককে জরিমানা করা হয়েছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here