যশোরের নামেজ সরদার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক দুর্নীতির অভিযোগ

0
101

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোর সদর উপজেলার নামেজ সরদার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক কাজী শাহজান ও সহকারী প্রধান শিক্ষক এসএম সুজায়েত হোসেনের বিরুদ্ধে দুর্নীতি সহ নানা অভিযোগে প্রতিষ্ঠানের সাবেক ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ও এলাকাবাসী জেলা শিক্ষা অফিসারের কাছে অভিযোগ করেছেন। অভিযোগে এলাকার ৪২ জন অভিভাবক ও ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সদস্যবৃন্দ স্বাক্ষর করেছেন। অভিযোগে প্রধান শিক্ষক নিয়োগে ডিজি প্রতিনিধি না দেয়ার অনুরোধ জানানো হয়।
অভিযোগে সাবেক অভিভাবক সদস্যবৃন্দ ও এলাকাবাসী জানান, গত ২০১৩-১৭ অর্থবছরে সাবেক প্রধান শিক্ষক কাজী শাহজান ১৬ লাখ টাকার দুর্নীতি করেছেন। যার মধ্যে ১১ লাখ টাকা ভাউচার অনিয়ম, উপবৃত্তি টিউশন ফিস বাবদ আত্মসাৎ ৩৬ হাজার টাকা ও ৪ লাখ টাকা চেক অনিয়ম ও শিক্ষক গ্রাচ্যুইটি ফান্ড থেকে ৭৮ হাজার টাকা আত্মসাত করা হয়েছে। আর ২০১৭ সালের জেএসসি পরীক্ষার প্রশংসাপত্র বিক্রির টাকা তিনি আত্মসাত করেছেন। ভাউচার অনিয়ম ও প্রশংসাপত্র বিক্রির টাকা আত্মসাতের সাথে সহকারী প্রধান শিক্ষক এসএম সুজায়েত হোসেন জড়িত রয়েছেন। এছাড়া শিক্ষক নিয়োগ ও দাতা সদস্য নির্বাচনে দুর্নীতি করা হয়েছে। শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগে উপজেলা শিক্ষা অফিসার কামরুজ্জামান জাহাঙ্গীর, প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির নামে যশোর সিনিয়র স্পেশাল ট্রাইব্যুনালে মামলা চলমান রয়েছে। মামলা নং-৪০/২০১৬। দাতা সদস্য অনিয়মে বর্তমান কমিটির সদস্য মোজাহার আলী সদর সহকারী জজ আদালতে মামলা করেছেন। মামলা নং-৩৭/২০১৮। এছাড়া প্রধান শিক্ষক পদে আবেদনকারী সহকারী শিক্ষক শেখ রহমতুল্ল্যাহ শাহীন সুপ্রিম কোর্টের হাইকোট বিভাগে রিট পিটিশন করেছেন। যার নম্বর-২০৪৯/২০১৯। এই অবস্থায় বর্তমান সহকারী প্রধান শিক্ষক ম্যানেজিং কমিটির কয়েকজন সদস্যকে ম্যানেজ করে ১০ লাখ টাকার বিনিময়ে প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ পেতে চুক্তি করেছেন। এলাকাবাসী এই দুর্নীতি গ্রস্থ শিক্ষককে প্রধান শিক্ষক হিসেবে দেখতে চাই না। নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ সহ অভিযুক্ত শিক্ষকদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ সহ প্রতিষ্ঠানের টাকা ফেরত আনার দাবি করেন।
জেলা শিক্ষা অফিসার এস এম আব্দুল খালেক বলেন, স্কুলটি নিয়ে আদালতে কয়েকটি মামলা চলমান আছে। মামলাগুলো নিয়ে সরকারি আইনজীবীর সাথে পরামর্শ করার পর প্রধান শিক্ষক নিয়োগের বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা করা হবে। আর দুর্নীতি প্রমাণিত হলে দ্রুত বিধিমোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here