যশোরের মনিরামপুরের দেবী টিকাদারের হত্যাকারী প্রেমিক পাচু আটক

0
222

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেবী টিকাদার হত্যায় প্রেমিক পাচু আটকযশোরের মণিরামপুর উপজেলার কুচলিয়া গ্রামের দেবী টিকাদার (৩৭) হত্যাকাণ্ডে জড়িত নিহতের প্রেমিক পাচু বিশ্বাসকে আটক করেছে ডিবি পুলিশ। আটক পাচু বিশ্বাস মণিরামপুর উপজেলার লেবুগাতী গ্রামের রাজবংশীপাড়ার জীবন বিশ্বাসের ছেলে।
বুধবার রাতে খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার শোলগাতিয়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের এসআই মফিজুল ইসলাম (পিপিএম) জানান, আটকের পর তার স্বীকারোক্তিতে কুচলিয়া গ্রামের একটি পুকুর থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত চাকু উদ্ধার করা হয়।
মণিরামপুর উপজেলার কুচলিয়া গ্রামের পীযুষ টিকাদারের স্ত্রী ও এক সন্তানের মা দেবী টিকাদারকে গত ৩ এপ্রিল রাত ৮টার দিকে মোবাইল ফোন করে ডেকে নেয় অজ্ঞাতরা। দু’দিন পর ৫ এপ্রিল সকাল ৯টার দিকে একই এলাকার মুকুন্দ সরকারের স্ত্রী রেখা সরকার তাদের পুকুরপাড়ে গেলে দেবী টিকাদারের লাশ দেখতে পান। তার বুকসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারাল অস্ত্র দিয়ে আঘাতের চিহ্ন ছিল।
হত্যার ঘটনায় নিহতের স্বামী পীযুষ টিকাদার অজ্ঞাতদের আসামি করে মণিরামপুর থানায় মামলা করেন। মামলাটির দায়িত্ব পায় ডিবি পুলিশ। এরপর প্রযুক্তির সাহায্যে বুধবার রাত ১০টার দিকে খুলনার ডুমুুুরিয়া উপজেলার শোলগাতিয়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে ভগ্নিপতির বাড়ি থেকে নিহতের প্রেমিক পাচু বিশ্বাসকে আটক করা হয়। পরে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত একটি চাকু উদ্ধার করা হয়। পরে আদালতে হাজির করলে পাচু হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেন।
আদালত ও পুলিশ সূত্র জানায়, পাচু বিশ্বাসের সাথে দেবী টিকাদারের দীর্ঘদিনের পরকীয়া ছিল। ২০০৬ সালে দেবী টিকাদার স্বামী ও একটি পুত্রসন্তান ফেলে তার হাত ধরে ভারতে পালিয়ে যান। প্রায় দু’বছর পর তারা বাড়িতে ফিরে আসেন। এরপর দেবী টিকাদার ফের স্বামীর সাথে সংসার শুরু করেন। একইসাথে গোপনে পাচুর সাথেও সম্পর্ক বজায় রাখেন। দেবী বিভিন্ন অজুহাতে ব্লাকমেইল করতে থাকেন পাচুকে। কিছু টাকাও হাতিয়ে নেন তিনি। এসব টাকা লেনদেনের বিষয়ে গত ৩ মার্চ রাতে মোবাইল ফোন করে এলাকার মুকুন্দ সরকারের বাগানে দেবী টিকাদারকে ডেকে হত্যা করে পাচু।