যশোরের শার্শায় পৃথক তিনটি অভিযানে ভারতে পাচারকালে ৪ কেজি ৩৯৩ গ্রাম স্বর্ণ উদ্ধার করা হয়েছে।

0
42

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোরের শার্শায় পৃথক তিনটি অভিযানে ভারতে পাচারকালে ৪ কেজি ৩৯৩ গ্রাম স্বর্ণ উদ্ধার করা হয়েছে।

গত ২৪ঘন্টায় তিনটি অভিযান পরিচালনা করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। অভিযানে ৩ কোটি ৪২ লাখ ৪৪ হাজার টাকার মূল্যের স্বণের বারসহ তিন জনকে আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন- বেনাপোল পৌর সভার ছোট আঁচড়া গ্রামের ইসমাইল সর্দারের ছেলে কুতুবউদ্দীন আশা (২৮) ও একই এলাকার নামাজ গ্রামের মৃত কালাম হোসেনের ছেলে সোহানুর রহমান বিশাল (২৭)। গোগা গ্রামের মৃত কালাম হোসেনের ছেলে সকিব হোসেন (১৮)।

খুলনা ২১ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল তানভীর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকাল নয়টার দিকে বিজিবির একটি অভিযানিক দল রুদ্রপুর সীমান্তে অভিযান চালিয়ে সাকিব হোসেন নামের এক পাচারকারীকে আটক করে ক্যাম্পে নিয়ে আসে। পরে তার হাতে থাকা সারের ব্যাগে তল্লাশি চালিয়ে ১০ টি স্বর্ণের বার জব্দ করা হয়।

এদিন রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুটখালি গ্রামের মসজিদ বাড়ি বিজিবি পোস্টে অভিযান চালিয়ে সন্দেহ ভাজন একটি প্রাইভেট কার গতি রোধ করা হয়। এসময় প্রাইভেট কারটি তল্লাশি চালিয়ে পেছনের ছিটের মধ্যে লুকিয়ে রাখা এক কেজি ৬০ গ্রাম ওজনের এক পিচ বড় স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। এসময় প্রাইভেট কারসহ কুতুবউদ্দিন আশা ও সোহানুর রহমান বিশাল নামের দুই পাচারকারীকে আটক করা হয়।

একইদিন রাতে যশোর-বেনাপোল মহাসড়কের আমড়াখালি বিজিবি পোস্ট এলাকায় নজরদারি বাড়ায় বিজিবি সদস্যরা। এসময় চেকপোস্ট এলাকায় এক মোটরসাইকেল আরোহীকে গতিরোধ করতে সংকেত দিলে সে মোটরসাইকেল নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। পরে বিজিবি সদস্যরা তাকে ধাওয়া করলে সে বেনাপোল সীমান্তের মালিপুতা এলাকায় মোটরসাইকেল ফেলে গ্রামের মধ্যে পালিয়ে যায়। এ সময় মোটরসাইকেল তল্লাশি করে ১৮ পিচ স্বর্ণ বার উদ্ধার করা হয়।

তিনি আরও জানান, তিনটি অভিযানে মোট ২৯ পিস স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়েছে। যার মোট ওজন ৪ কেজি ৩৯৩ গ্রাম এবং মূল্য ৩ কোটি ৪২ লাখ ৪৪ হাজার টাকা। আটক পাচারকারীদের মামলা দিয়ে সংশ্লিষ্ট থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।