যশোরের শীর্ষ সন্ত্রাসী ট্যাটো সুমন অস্ত্রগুলিসহ গ্রেফতার

0
24

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোর কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশ তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী সুমন ওরফে ট্যাটো সুমন ওরফে ইমনকে (২৭) আগ্নেয়াস্ত্র-গুলিসহ গ্রেফতার করেছে। শুক্রবার গভীররাতে শহরের টিবি ক্লিনিকের পিছন থেকে তালিকাভুক্ত এই সন্ত্রাসীকে একটি ওয়ান শুটারগান ও এক রাউন্ড গুলিসহ গ্রেফতার করা হয়। আটক সন্ত্রাসী শহরের টিবি ক্লিনিক এলাকার কানা বাবু ওরফে আফজালের ছেলে।

যশোর পুলিশের মুখপাত্র জেলা গোয়েন্দা শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি রুপন কুমার সরকার জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার দিবাগত গভীররাতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বেলাল হোসাইন ও কোতোয়ালি থানার ওসি তাজুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশ একটি ওয়ান শুটারগান ও এক রাউন্ড কার্তুজসহ তাকে গ্রেফতার করেন।

কোতোয়ালি থানার ওসি মো. তাজুল ইসলাম জানান, সন্ত্রাসী ট্যাটো সুমনের বিরুদ্ধে দুটি চাঁদাবাজি মামলা, দুটি মাদক মামলাসহ মোট ৯টি মামলা রয়েছে। পুলিশ দীর্ঘদিন তাকে খুঁজছিল। তার সহযোগী ও সাঙ্গপাঙ্গরা এ ঘটনার পর পালিয়ে গেছে। তাদের আটকের জন্য পুলিশ মাঠে রয়েছে।

এলাকার ভুক্তভোগীরা জানান, ট্যাটোসহ সন্ত্রাসী দলের অন্যান্য সদস্যরা রেলগেট, রেলবাজার, ষষ্ঠীতলা, আশ্রম এলাকার বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে গণহারে চাঁদাবাজি করে থাকে। বিভিন্ন ট্রেন যাত্রীদের কাছ থেকে এই সন্ত্রাসীরা টাকা-পয়সা, গহনা, মোবাইল ছিনতাই করে থাকে।

যশোর শহরের রেলবাজার এলাকার বাসিন্দারা মেহেদি, জাফর, আসিফ, রুবেল, ফয়সাল, বাপ্পী, ভোলাসহ এই সন্ত্রাসী বাহিনীর নীরব চাঁদাবাজির শিকার। তাদের বিরুদ্ধে কোতয়ালী থানায় অস্ত্র, দাঙ্গা, চুরি ছিনতাইসহ বহু মামলা রয়েছে। তারা রেলস্টেশন বাজার এলাকার বিভিন্ন ব্যবসায়ী, ট্রেনযাত্রীসহ বিভিন্ন ব্যক্তিকে ফাঁদে ফেলে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে চাঁদা আদায় ও ছিনতাই করে বলে বহু অভিযোগ রয়েছে। উল্লেখিতদের মধ্যে মেহেদি, জাফর, আসিফ ট্যাটো সুমনের অত্যাচার বেশি। তারা সবাই দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী ম্যানসেলের লোক পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন অপরাধ করছে বলে অভিযোগ। তাদের ভয়ে কেউ প্রশাসনের কাছে অভিযোগ করতে সাহস পায় না।