যশোরে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা !

0
90

নিজস্ব প্রতিবেদক : অগ্নিদগ্ধে ৪ মাসের অন্তঃসত্ত্বা পুতুলের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (৪ নভেম্বর) সকালে ঢাকায় নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়েছে। অগ্নিদগ্ধে আহত স্বামী প্রদীপ পুলিশ প্রহরায় যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নে কাউনিয়া দাসপাড়ায় মঙ্গলবার (৩ নভেম্বর) রাতে অগ্নিদগ্ধের ঘটনা ঘটে।
অগ্নিদগ্ধ প্রদীপ জানায়, সে মুসলমানের ঘরে জন্ম। তার নাম ছিল আল আমিন। পুতুলকে ভালবেসে তাকে বিয়ে করার জন্য এক বছর আগে সনাতন ধর্ম গ্রহণ করে। এসময় তার নাম প্রদীপ রাখা হয়। কয়েকদিন ধরে স্ত্রী পুতুলের সাথে পারিবারিক বিষয় নিয়ে ঝগড়া হচ্ছিল। মঙ্গলবার রাতে একপর্যায়ে পুতুলের ঘরের বাইরে যেতে চাইলে তিনি বাধা দেন এবং দরজা আটকে শুয়ে পড়েন। পুতুল ক্ষিপ্ত হয়ে পাশের ঘরে গিয়ে নিজের শরীরে কেরসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয়। এসময় তিনি আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন। এতে তার দু’হাত পুড়ে যায়। পরে প্রতিবেশিরা তাদের উদ্ধার করে হাসপাতাল ভর্তি করে। চিকিৎসকরা দগ্ধ পুতুলের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে খুলনায় রেফার করে। খুলনায় আরো অবনতি হলে পুতুলকে ঢাকায় রেফার করে। বুধবার সকালে ঢাকায় নেয়ার পথে গোপালগঞ্জে তার মৃত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন পুতুলের কাকা সঞ্জয় কুমার।
মৃত্যুর আগে পুতুল তাকে বিস্তারিত জানিয়েছে বলে দাবি করেছে সঞ্জয় কুমার। পুতুল জানিয়েছে, রাতে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়ার একপর্যায়ে প্রদীপ তাকে বলেন, ‘তুই আমাকে কত ভালোবাসিস তা গায়ে আগুন দিয়ে দেখা।’ এই পর্যায়ে গায়ে কেরোসিন ঢেলে পুতুল আগুন ধরিয়ে দেন। সেই আগুনে পুড়ে তার মৃত্যু হয়।
তবে প্রতিবেশিরা জানান, রাতে প্রদীপ ও তার স্ত্রী পুতুলের মধ্যে ঝগড়া হচ্ছিল। একপর্যায়ে তাদের চিৎকার শুনে বাইরে এসে দেখেন ঘরের মধ্যে আগুন জ্বলছে। এসময় প্রতিবেশিরা তাদের উদ্ধার করে ঝিকরগাছা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। খবর পেয়ে পুলিশ তাদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়।
যশোর জেনারেল হাসপাতালের ডাক্তার আহমেদ তারেক শামস চৌধুরী জানান, রাত ১২টার দিকে দগ্ধ দম্পতিকে হাসপাতালে আনা হয়। পুতুলের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় রাতে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনায় রেফার করা হয়। এছাড়া আহত প্রদীপের দুটি হাত, চোয়াল ও মাথার চুল পুড়ে গেছে। তাকে সার্জারি ওয়ার্ডে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।
অভিযুক্ত প্রদীপ প্রতিবেশীদের অভিযোগ অস্বীকার করেছে।
ঝিকরগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক জানান, প্রতিবেশিরা ঝগড়ার কারণে প্রদীপ তার স্ত্রীকে আগুন লাগিয়ে দিতে পারে বলে অভিযোগ করেছে। এ কারণে প্রদীপকে আটক করা হয়েছে। তাকে পুলিশ প্রহরায় যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।