যশোরে আবারও জেলি পুশ চিংড়ির চালান আটক

0
23

নিজস্ব প্রতিবেদক : রফতানির উদ্দেশ্যে ঢাকায় নিয়ে যাবার পথে আবারও ইনজেকশনের মাধ্যমে অবৈধভাবে জেলি পুশ করা চিংড়ির একটি চালান আটক করেছে র‌্যাব সদস্যরা। বৃহস্পতিবার গভীররাতে যশোর শহরের চাঁচড়া মোড়ে একটি ট্রাক থেকে অবৈধ জেলি পুশ করা ১১ লাখ টাকা মূল্যের দেড় টন ওজনের চিংড়ি জব্দ ও ধ্বংস করা হয়। এ সময় জেলা মৎস্য পরিদর্শক ও মান নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা লিপ্টন সরদার দুজন ব্যবসায়ীকে ৫০ হাজার টাকা করে একলাখ টাকা জরিমানা করেন।

শুক্রবার গণমাধ্যমে পাঠানো প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যার জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৬ জানতে পারে, চিংড়ি মাছে ইনজেকশনের মাধ্যমে জেলি পুশ করে মাছের ওজন বৃদ্ধি করে অস্বাস্থ্যকরভাবে বাজারজাত করণের উদ্দেশ্যে একটি ট্রাক ভর্তি চিংড়ি মাছ সাতক্ষীরা হতে ঢাকায় যাচ্ছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা হতে র‌্যাব যশোর-বেনাপোল সড়কের চাঁচড়ায় অস্থায়ী চেকপোস্ট বসায়। এ সময় একটি ট্রাক (যশোর-ট- ১১-৪৩৭১) থেকে ৫৭টি ককশিট ভর্তি চিংড়ি মাছে ইনজেকশনের মাধ্যমে জেলি পুশ করার প্রমাণ পাওয়া যায়। রাত দেড়টা পর্যন্ত এ অভিযান চলে।

মৎস্য ও মৎস্য পণ্য (পরিদর্শন ও মান নিয়ন্ত্রণ) বিধিমালা ১৯৯৭ (সংশোধিত বিধিমালা ২০০৮) এর বিধি ৪(৪) লংঘন করায় বিধিমালার বিধি ৪(৫) অনুসারে চিংড়ি মাছের দুজন মালিককে ৫০ হাজার টাকা করে একলক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়। এই দুই ব্যবসায়ী হলেন : সাতক্ষীরা জেলার দেবহাটা উপজেলার নওয়াপাড়া গ্রামের মো. আব্দুল্লাহ ও একই গ্রামের মো. জালাল। এসময় ৫৭টি ককশিট ভর্তি জেলি পুশ করা চিংড়ি মাছ জব্দ এবং ধ্বংস করা হয়। জরিমানাকৃত টাকা সরকারি কোষাগারে জমা করা হয়েছে।

র‌্যাব-৬, সিপিসি-৩, যশোর ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার লে. কমান্ডার এম নাজিউর রহমান ও স্কোয়াড কমান্ডার এএসপি তারেক আমান বান্না এবং যশোর জেলা মৎস্য পরিদর্শক ও মান নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা লিপ্টন সরদার এ আভিযান পরিচালনা করেন।

উল্লেখ্য, গত ২০ মে অসাধু ব্যবসায়ীরা একইভাবে ইনজেকশনের মাধ্যমে জেলি পুশ করা রফতানির উদ্দেশ্যে ঢাকায় নিয়ে যাচ্ছিলেন। এ সময় বাহাদুরপুর স্কুলের সামনে থেকে ১৫ লাখ টাকা দামের দুই টন চিংড়ি জব্দ ও ধ্বংস করা হয়। ৭ জন ব্যবসায়ীকে জরিমানা করা হয় আড়াই লাখ টাকা।