যশোরে এক বাড়িতে ছয় ডাকাতের হামলা লুটপাট বোমার বিস্ফোরণ দুইজন আহত

0
27

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোর সদর উপজেলার আরবপুর ইউনিয়নের পতেঙ্গালী গ্রামের এক বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় বাড়ির লোকজনকে বেঁধে লুটপাট চালিয়েছে। ডাকাতির সময় একটি বোমার বিস্ফোরণ ঘটনায় ৬ সদস্যের ডাকাত দল। বিস্ফোরিত বোমার স্পিøন্টারের আঘাতে সুমন গাজী (৩৭) নামে একজন আহত হয়েছেন।
ঘটনাটি ঘটেছে শনিরাব মধ্যরাতে গ্রামের মৃত নয়ন চক্রবর্তীর ছেলে কমল চক্রবর্তীর বাড়িতে। এই ঘটনার পর পুলিশের একাধিক টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।
কমল জানায়, রাত দুইটায় হঠাৎ মুখোশধারী ৬ জন বাড়ির পশ্চিম পাশের জানালার গ্রিল কেটে ঘরে ঢোকে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই তার ও তার স্ত্রীর অরুন্ধতীর হাত বেঁধে ফেলে। এসময় তার মাথায় লোহার রড দিয়ে আঘাত করে দূর্বৃত্তরা। কমল চক্রবর্তী চিৎকারে তার ভাইয়ের স্ত্রী মৌসুমী চক্রবর্তী আসলে তাকেও বেঁধে ফেলা হয়। পাশের রুমে গিয়ে তার ভাই শ্যামল চক্রবর্তীকে বেঁধে ফেলে। ডাকাতদের হাতে থাকা দেশীয় অস্ত্র দা, বটি ও ককটেল দিয়ে ভীতি সৃষ্টি করে বাড়িতে থাকা স্টিলের আলমারি থেকে আনুমানিক ৯/১০ ভরি সোনা, নগদ ১০/১২ হাজার টাকা, তার ভাই শ্যামল চক্রবর্তীর ঘর থেকে নগদ একলাখ ৯০ হাজার টাকা ও ৫/৬ ভরি সোনা লুট করে ।
স্থানীয়রা জানায়, ঘটনার বিষয়টি বুঝতে পেরে এলাকার লোকজন ছুটে আসলে দূর্বৃত্তরা বোমার বিস্ফোরণ ঘটনায়। প্রতিবেশী নুরু গাজীর ছেলে সুমন গাজী বোমার বিস্ফোরণে আহত হন। পরে দূর্বৃত্তরা রাত আড়াইটার দিকে কমলের বাড়ির পশ্চিম দিকের মাঠ দিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। এরপর স্থানীয়রা আহত কমল চক্রবর্তী ও সুমন গাজীকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।
এ বিষয়ে কোতয়ালি থানার ওসি (তদন্ত) শফিকুল ইসলাম চৌধুরী ও সেকেন্ড অফিসার আফম মনিরুজ্জামান জানিয়েছেন, রাতেই পুলিশের একাধিক টিম ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছে। এছাড়া সকালে পুলিশের উর্দ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে।