যশোরে এবার স্ত্রীর বিরুদ্ধে স্বামীর আরো একটি যৌতুক মামলা

0
145

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোরে স্ত্রীর বিরুদ্ধে যৌতুক দাবির অভিযোগে আদালতে আরও একটি মামলা হয়েছে। বোরবার শহরের বারান্দী মোল্লাপাড়ার বাসিন্দা ইস্পাহানি কোম্পানি লিমিটেডের নির্বাহী কর্মকর্তা পঙ্কজ কুমার সরকার বাদী হয়ে এ মামলা করেছেন। জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. সাইফুদ্দীন হোসাইন অভিযোগটি গ্রহণ করে প্রতিবেদন দাখিলের আদেশ দিয়েছেন সিআইডি যশোর জোনকে।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, তার স্ত্রী মিনাক্ষী নন্দীর বাবার বাড়ি ঝিনাইদহে। চলতি বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি পারিবারিকভাবে হিন্দু ধর্মীয় মতে মিনাক্ষী নন্দীর সাথে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর তারা তাদের যশোরের বাড়িতে শান্তিতে সংসার করছিলেন। তিনি ইস্পাহানি কোম্পানির লিমিটেডের একজন নির্বাহী কর্মকর্তা। চুয়াডাঙ্গায় তার কর্মস্থল। মিনাক্ষী নন্দীকে কর্মস্থলে নিয়ে সংসার করতে চাইলে আপত্তি করেন তার স্ত্রী। এক পর্যায়ে স্ত্রী মিনাক্ষী তার কর্মস্থলে ও তার মা-বাবার সাথে ঘর সংসার করবে না বলে জানায়। বাবার বাড়ির কাছে জমি কিনে বাড়ি নির্মাণ করে দিলে সেখানে ঘর সংসার করবে বলে জানিয়ে দেয়। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মনোমালিন্যের সৃষ্টি হয়। স্ত্রী রেগে গিয়ে তার বাম হাতের শাখা পর্যন্ত ভেঙে ফেলেন। এরপর গত ৩ এপ্রিল তিনি তার স্ত্রীকে নিয়ে কর্মস্থল চুয়াডাঙ্গার ভাড়া বাড়িতে যান। সেখানে স্ত্রী মিনাক্ষী নন্দী মা বাবার কু-প্ররোচণায় তার কাছে জমি ক্রয় ও বাড়ি নির্মাণ বাবদ ১০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। কিন্তু তিনি তাকে যৌতুক দিতে অস্বীকার করেন। এরপর গত ১৭ সেপ্টেম্বর তার স্ত্রীকে যশোরের বাড়িতে নিয়ে আসেন। কিন্তু এখানে এলেও যৌতুক দাবির বিষয় নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে অশান্তি চলতে থাকে। মিনাক্ষী নন্দীর মা বাবা গত ১৯ সেপ্টেম্বর যশোরে জামাইয়ের বাড়িতে আসেন। উভয়পক্ষ মিমাংসার জন্য বসলেও সমাধান হয়নি। বরং মা বাবার কু প্ররোচণায় মিনাক্ষী নন্দী ১০ লাখ টাকার যৌতুক দাবিতে অনঢ় থাকেন। এর এক পর্যায়ে বিয়ের সময় দেয়া সাড়ে ৯ ভরি সোনার অলঙ্কার নিয়ে তার স্ত্রী মা-বাবার সাথে ওইদিন বিকেলে যশোর থেকে চলে যান। ফলে কোনো উপায় না পেয়ে পঙ্কজ কুমার সরকার স্ত্রী মিনাক্ষী নন্দীর বিরুদ্ধে ১৯১৮ সালের যৌতুক নিরোধ আইনে আদালতে মামলা করেছেন। আগামি ৩১ ডিসেম্বর মামলার পরবর্তী দিন ধার্য্য করা হয়েছে। চলতি নভেম্বর মাসে যশোর আদালতে আরো দুটি স্ত্রীর বিরুদ্ধে যৌতুকের মামলা হয়েছে।