যশোরে কলেজছাত্র হত্যার দায়ে ৫ ভাইয়ের যাবজ্জীবন

0
231

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোরের কেশবপুরে কলেজ ছাত্র বোরহান উদ্দিন গাজী ওরফে মারুফ (১৮) হত্যা দায়ের আপন ৫ ভাইকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে খুলনা বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক এম এ রব হাওলাদার চার আসামির উপস্থিতে এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন কেশবপুর উপজেলার কিসমত শানতলা গ্রামের মৃত জয়নাল ধাবকের ৫ ছেলে মো. মহির উদ্দিন ধাবক (৪৫), মো. জহির উদ্দিন ধাবক (৪১), মো. কহির উদ্দিন ধাবক (৩৫), মো. দবির উদ্দিন ধাবক (৩০) ও মো. কবির উদ্দিন ধাবক (৩৩)। এদের মধ্যে কবির পলাতাক।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মৃত জব্বার গাজীর ছেলে মো. শওকত গাজীর সঙ্গে পাশ্ববর্তী মৃত জয়নাল ধাবকের ৫ ছেলের বিরোধ ছিল। ওই বিরোধের জের ধরে ২০১৩ সালের ১১ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ৭টার দিকে কিসমত শানতলা গ্রামের গাজীর মোড়স্থ দবির উদ্দিন ধাবকের বাড়িতে ডেকে নিয়ে শওকত গাজীর ছেলে রায়হান উদ্দিন গাজীকে (২৪) ক্রিকেট ব্যাট দিয়ে পিটিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখা হয়। খবর পেয়ে সিদ্দিকুর রহমান গাজীর ছেলে মারুফ রায়হান উদ্ধার করতে যায়। তখন আসামিরা তাকেও বেধড়ক মারধর করে মারাত্মক জখম করে। তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হলে পরবর্তীতে মারুফ মারা যান। এ ঘটনায় নিহত মারুফের চাচা মৃত আব্দুল হামিদ গাজীর ছেলে মো. রজব আলি গাজী বাদী হয়ে ৭ জনের বিরুদ্ধে কেশবপুর থানায় মামলা দায়ের করেন।

২০১৪ সালের ১ এপ্রিল মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক নাসির উদ্দিন ৫ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। মামলাটি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে ২০১৬ সালের ৩ অক্টোবর যশোরের অতিরিক্ত জেলা জজ দ্বিতীয় আদালত থেকে খুলনা বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here