যশোরে কাবিন ছাড়া কলমা পড়ে বঞ্চিতা সমাজ কল্যাণ সংস্থার সভাপতি রানুকে বিয়ে, অতপর. . . .

0
488

এম আর রকি : আমির হোসেন নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে প্রতারনা মূলক বিভিন্ন নারীদের ফুসলিয়ে টাকা পয়সা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। সর্বশেষ যশোর শহরের বঞ্চিতা সমাজ কল্যাণ সংস্থার সভাপতি নুর নাহার রানু’র কাছ থেকে বিভিন্ন কৌশলে ৩০ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে মারপিটের অভিযোগ উঠেছে। রানুকে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

যশোর শহরের বাবু বাজার ও ঝালাইপট্টি সংলগ্ন বাসিন্দা বঞ্চিতা সমাজ কল্যাণ সংস্থার সভাপতি নুর নাহার রানু জানান,বিগত ৫ বছর পূর্বে যশোর সদর উপজেলার কাশিমপুর ইউনিয়নের ডহের পাড়া গ্রামের মৃত ছাবির মিয়ার ছেলে আমির হোসেন ভালবাসার প্রলোভন দিয়ে তার মন জয় করে। রানু মনে প্রাণে স্বামীর স্থান দেয় আমিরকে। আমির এই সুযোগে অবলা রানুর কাছ থেকে বিভিন্ন সময় টাকা পয়সাসহ ৩০লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নেয়। রেজিষ্টি ছাড়া কলমা পড়ে রানুকে সে স্ত্রী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়। রানুকে স্ত্রী হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার পর তার অর্থবিত্ত গ্রাস করতে সে রানুর কাছ থেকে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে কাশিমপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়া ও নির্বাচনে ব্যয় হিসেবে প্রায় ১০লক্ষাধিক টাকা ও নির্বাচনে প্রতিদন্দ্বিতা করতে হলে কাশিমপুর ইউনিয়নের ডহের পাড়ায় বাড়ি নির্মাণ করার প্রস্তাব দেয়। মনে প্রাণে স্বামী হিসেবে গ্রহন করায় আমিরের কথা মতো কয়েক লাখ টাকা ব্যয় করে আমিরের ডহের পাড়া গ্রামে বাড়ি নির্মাণ করে দেয়। রানু আরো জানান,আমির হোসেনকে স্বামী হিসেবে মেনে নেওয়ায় বাবু বাজার এলাকায় রানুর বাড়ির একটি ফ্লাটের মাসে ৬ হাজার ৮শ’ টাকা ভাড়া আমির হোসেন তার একাউন্টে জমা করে দেয়। এভাবে রানুর কাছ থেকে আমির হোসেন ৩০ লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নেয়। রানু আমির হোসেনকে বিয়ের রেজিষ্টি করতে বললে সে নানাভাবে তালবাহনা করেন বলে জানান। আমির হোসেনের তালবাহনা বুঝতে পেরে রানু তার কাছ নেওয়া উক্ত টাকা ফেরত চায়। গত কয়েকদিন যাবত টাকা ফেরত চাওয়া নিয়ে আমির হোসেনের সাথে তার মন মানিল্য= হচ্ছিল। রানু আরো জানান,শুক্রবার বিকেলে আমির হোসেন রানুকে তার পাওনা টাকা নেওয়ার জন্য শহরের ঘোপ জেলরোডস্থ বাইলেন খসরুর বাড়ির ভাড়াটিয়া প্রবাসী মাসুদের ঘরে আসতে বলে। সেখানে বিকেল ৪ টায় রানু আমির হোসেনের কথা মতো গেলে আমির হোসেনের নবাগত রক্ষিতা ও দেহরক্ষি প্রবাসী মাসুদের স্ত্রী ফতে ,ফতের বোন পুতুল ও ফতের ছেলে রাব্বী ও আমির হোসেন মিলে ঘরের দরজা বন্ধ করে রানুকে এলোপাতাড়ীভাবে মারপিট করে। রানু চিৎকার দিলে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে। রানুকে গুরুতর অবস্থায় যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাকে ভর্তি করে নেয়। রানু আরো জানান,আমির হোসেন আইনজীবী হওয়ার ইতিপূর্বে শহরের মাড়–য়াড়ী মন্দির সংলগ্ন পতিতালয়ের পতিতা সর্দারনী পদ্মার সাথে একই ভাবে প্রতারণা করে তার কাছ থেকে কয়েকলাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। এছাড়া,শহরতলী চাঁচড়া এলাকার এক নারীসহ বেশ কয়েকজন নারীর সাথে প্রতারণা মূলকভাবে প্রেমের অভিনয় করে ভূয়া বিয়ে করে স্ত্রী দাবি করে স্বামী হিসেবে তাদের কাছে নিয়মিত যাতায়াত করে থাকে। আহত রানু আমির হোসেনসহ তার সহযোগী হামলাকারীদের বিরুদ্ধে এজাহার দায়েরের প্রস্তুতি করছে বলে জানান। রানু আমির হোসেনের এহেন কর্মকান্ডের জন্য যশোর জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি,সাধারণ সম্পাদকসহ উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here