যশোরে গত দু’দিনে পৃথক ঘটনায় তিন জনের মৃত্যু

0
307

ম্যাগপাই নিউজ ডেক্স : যশোরে পৃথক ঘটনায় গত দুদিনে তিন জন নিহত হয়েছে। নিহতরা হলেন যশোরে সদর উপজেলার রুদ্রপুর গ্রামের মৃত নূর মহম্মাদের স্ত্রী সরবানু ওরফে বুড়ি (৬০) গলায় ফাঁস দিয়ে নিহত হয়। এবং ঝিনাইদা জেলার কোটচাদপুর পৌর এলাকার উত্তম রায়ের ছেলে সজীব রায় (১৯), মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন।ও, কোটচাঁদপুর উপজেলার কাগমারী গ্রামের মৃত কার্তিক হালদারের ছেলে পঙ্কজ হালদার (২৫) ট্রাক ও আলমসাধু সংঘর্ষে দুর্ঘটনায় নিহত হয়।

হাসপাতাল সুত্রে জানাযায়, নিহত সরবানু রোববার সকাল ১১টায় পারিবারিক কলহের জের ধরে নিজ বাড়িতে গোয়াল ঘরের আড়ার সাথে কাপড় পেচিয়ে গলায় ফাঁস নেয়। পরে স্থানীয়দের খবরে কোতয়ালী থানা পুলিশ ওই রাতে লাশ উদ্ধার করে যশোর ২৫০শয্যা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়ে দেয়।

অপরদিকে নিহত সজীব রোববার দুপুরে বাড়ি থেকে তার ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানে যাওয়ার পথে, বাড়ি অদুরে একটি মটর সাইকেল তাকে ধাক্কা দেয়। এতে সে গুরুতর আহত হয়। স্থানিয়রা তাকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০শয্যা জেনারেল হাসপাতালে রোববার বিকালে ভর্তি করে। চিকিৎসাধিন অবস্থায় রাতে তার মৃত্যু হয়।
অন্যদিকে নিহত পঙ্কজ হালদারকে বিয়ে দেওয়ার জন্য কনে দেখতে পঙ্কজ ও তার মামা কোটচাঁদপুর দুধসরা গ্রামের সঞ্জয় হালদার (৪০), নিকটাত্মীয় সজীব হালদার (২৫) এবং ঘটক ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার সিঙ্গিয়া গ্রামের নিমাই হালদার (৫০) সোমবার বিকেলে এলাকার দুধসরা মোড় থেকে তারা দর্শনা নিহালপুরের উদ্দেশে রওনা দেন। কোটচাঁদপুর ফায়ার স্টেশন পার হতে না হতেই বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাক পাত্রবাহী আলমসাধুটিকে সামনে থেকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে দুর্ঘটনাস্থলেই ঘটক নিমাই হালদার মারা যান। অন্যদের আহত অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নেয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক পাত্র পঙ্কজকে যশোর ২৫০শয্য জেনারেল হাসপাতালে রেফার্ড করেন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সার্জারি ওয়ার্ডে দায়িত্বরত ইন্টার্ন ডাক্তার শাহীন ওই রাতে পাত্র পঙ্কজকে মৃত ঘোষনা করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here