যশোরে নবনির্বাচিত মেম্বারকে গুলি করে হত্যার রহস্য উদঘাটন

0
55

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোর অভয়নগরে নবনির্বাচিত মেম্বার উত্তম সরকার হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করেছে যশোর জেলা ডিবি (গোয়েন্দা) পুলিশ।

হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে পাঁচজনকে আটক ও হত্যাকাণ্ডে ব্যবহারিত অস্ত্র গুলি ও বোমা তৈরির সরজাম উদ্ধার করেছে।

আটককৃতরা হলো- খুলনা জেলার ডুমুরিয়া উপজেলার রুদাঘরা গ্রামের ইসহাক গোলদারের ছেলে ইকরামুল গোলদার (১৯), একই এলাকা দিঘলিয়া গ্রামের চুকনগর গ্রামের শিবপদ মন্ডলের ছেলে প্রশান্ত মন্ডল (৩৮), দিঘলিয়া গ্রামের বিষ্ণুপদ বিশ্বাসের ছেলে বিজয় কুমার মন্ডল ওরফে বিনোদ (৪২) যশোর অভয়নগর ভদ্দরী বিশ্বাস সুন্দলি পূর্বপাড়ার নিতাই বিশ্বাসের ছেলে প্রজিত বিশ্বাস ওরফে বুলেট (২৪), ও মণিরামপুর উপজেলার সুজাতপুর গ্রামের পরিতোষ বিশ্বাসের ছেলে পল্লব বিশ্বাস ওরফে সুদিত্ত (২৪)।

রবিবার(১৬ জানুয়ারি) সকাল ১১টায় ডিবি অফিসে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা জানানো হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তবে জানানো হয়, গত পহেলা জানুয়ারি অভয়নগরে নবনির্বাচিত মেম্বার উত্তম সরকার খুন হয়। এঘটনায় অভয়নগর থানায় মামলা হলে মামলার তদন্তভার গ্রহণ করে জেলা ডিবি পুলিশ। প্রযুক্তি ব্যবহার করে হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে পাচঁজনকে আটক করা হয় বিভিন্ন জায়গা থেকে। এসময় তাদের কাছ থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহারিত উদ্ধার করা হয় একটি ওয়ান শুর্টারগান, তিন রাউন্ড গুলি, দুটি গুলির খোসা, ছয় রাউন্ড কার্তুজ, একটি লোহার রড, একটি ককটেল, ১০ গ্রাম গান পাউডার, ৫০ গ্রাম তার কাটা, শপিং ব্যাগ একটি, পাঁচটি মোবাইল ফোন, দুটি মোটরসাইকেল ও একটি ইয়ারগান।

হত্যাকারীরা নিউ বিল্পবী কমিউনিস্ট পার্টির সক্রিয় সদস্য। এরা সদ্যনাম ব্যবহার করে দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চালে চাঁদাবাজি করে।

নবনির্বাচিত মেম্বার উত্তম সরকারের কাছে চাঁদা চেয়ে ছিলো। তাদের চাদা না দেয়ায় উত্তম সরকারকে হত্যা করা হয়।