যশোরে পুলিশের অনুষ্ঠানে পুরষ্কার ঘোষিত মাদক ব্যবসায়ি!!

0
87

বিশেষ প্রতিনিধি

যশোরে বার্ষিক পুলিশ সমাবেশ ও ক্রিড়া প্রতিযোগিতা ২০২৩ অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন পুলিশেরই পুরষ্কার ঘোষিত মাদক ব্যবসায়ি শফিকুল ইসলাম। তবে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবেই দাওয়াত পেয়েছেন বলে শফি

কুলের দাবী। শফিকুল ইসলাম চৌগাছার বড় কাবিলপুর গ্রামের সোনাই মন্ডলের ছেলে। তার বিরুদ্ধে জেলার বিভিন্ন থানায় ১১টি মাদক, অস্ত্রসহ ১৬টি মামলা আছে।
তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, ২০১৭ সালে যশোরের সাবেক পুলিশ সুপার (বর্তমানে ডিআইজি) মোঃ আনিসুর রহমান বিপিএম, পিপিএম (বার) যশোর জেলার ১৪ জন চিহ্নিত ও কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়িকে গ্রেফতারের জন্য পুরষ্কার ঘোষনা করেছিলেন। সেই ঘোষনার ৪ নং তালিকায় ছিল এই শফি মেম্বর ওরফে ডাইল শফি ওরফে শফিকুল ইসলাম।

সেসময় তাকে ধরিয়ে পোষ্টার ছাপিয়ে, প্রেসক্লাব যশোরে সংবাদ সন্মেলন করে ২৫ হাজার টাকা পুরষ্কার ঘোষনা করেছিল যশোর পুলিশ। কিন্তু ২০২২ সালে ২৮ মে ধূলিয়ানী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সন্মেলনে হঠাৎ করেই সভাপতি হিসেবে এই শফিকুলের নামই শোনা যায়।

ঘটনার দুদিন পরে ৩১ মে “ তালিকাভ’ক্ত মাদক কারবারি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি” শিরনামে দৈনিক সমকালে সংবাদ প্রকাশিত হয়।
পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শফিকুলের ছবিসহ ব্যাপক লেখালিখি শুরু হয়। তখন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এসএম হাবিবুর রহমান ও সাধারন সম্পাদক মেহেদী মাসুদ চৌধূরী “ তথ্য গোপন করার অপরাধ ” তুলে শফিুকুলের নাম সভাপতি হিসেবে স্থগিত রাখেন।

পরের দিন ১জুন “পদ থেকে সরানো হলো সেই মাদক কারবারিকে” শিরনামে উ

পজেলা সভাপতি ও সম্পাদকের বক্তব্যসহ দৈনিক যায়যায়দিনে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

এদিকে গত ৬ ফেব্রুয়ারি যশোরে পুলিশ সমাবেশ ও বার্ষিক ক্রিড়া প্রতিযোগিতা ২০২৩ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক চৌধূরী আব্দুল্লাহ-আল-মামুন বিপিএম (বার) পিপিএম। সেই অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাদের সাথে শফিকুলও উপস্থিত ছিলেন।
এ বিষয়ে শফিকুল বলেন, আমি ধূলিয়ানী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দাওয়াত পেয়েছিলাম। আপনার পদ-তো স্থগিত ছিল প্রশ্নের উত্তরে শফিকুল বলেন,“ সেটা কেটে গিয়েছতো। প্রধানমন্ত্রী যশোরে আসার আগেই ওটা কেটে গিয়েছ”।
এদিকে চৌগাছা থানার ওসি সাইফুল ইসলাম বলেন, তাকে তো দাওয়াত দেওয়া হয়নি। তবে সে কোনো রাজনৈতিক নেতার সাথে যেতে পারেন।
শফিকুলের বিষয়ে জানতে উপজেলা আওয়া

মী লীগের সাধারন সম্পাদ মেহেদী মাসুদ চৌধূরীকে শুক্রবার বিকাল ৩টা ২৪ এবং ৩টা ৫৫ মিনিটে দুবার কল করা হলেও সংযোগ সম্ভব হয়নি।
এদিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এসএম হাবিবুর রহমান শফিকুলকে সভাপতির পদে বহাল করা হয়নি বলে নিশ্চিত করেছেন।