যশোরে পৃথক দূর্ঘটনায় তিন জনের মৃত্যু

0
174

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় দুইজন ও বিদ্যুৎ স্পর্শে একজন সহ ৩জনের মৃত্যু হয়েছে। সড়ক দূর্ঘটনায় মৃতরা হলেন ঝিনাইদহ কালীগন্জ উপজেলার খোসালপুর গ্রামের মৃত জতিষ কর্মকারের ছেলে মধু কর্মকার(৫০)ও খুলনা ডুমুরিয়ার হাসানপুর গ্রামের মৃত মতলেব জৌয়ার্দারের ছেলে জি এম জাহিদুর রহমান (৪৪) তিনি যশোর বেনাপোল স্থালবন্দর কতৃপক্ষের জিপ চালক। এবং ঝিকরগাছা বাকড়া পল্লি বিদ্যুতায়ন নিয়মিত কর্মচারী মনোয়ার আলী (২৬) বিদ্যুৎ স্পর্শে মৃত্যু হয়। তিনি জামালপুর জেলার তুলশীপুর গ্রামের মৃত জব্বার আলীর ছেলে। বৃহস্পতিবার সকাল ও দুপুরের এঘটনায় লাশ তিনটি যশোর ২৫০শয্যা জেনারেল হাসপাতল মর্গে রয়েছে।

নিহত মধু কর্মকারের ছেলে দেবাশীষ কর্মকার জানান, বৃহস্পতিবার সকালে দেবাশীষ ও মধু বাড়ি থেকে ইঞ্জিন চালিত ভ্যান যোগে বারোবাজার নিজ দোকানে যাওয়ার পথে যশোর-ঝিনাইদহ সড়কের পিরোজপুর বটতলা নামক স্থানে পৌছালে, যশোর মুখি ঈগল পরিবহনের একটি কোচ পিছন থেকে ধাক্কা দেয়৷ এতে ভ্যান চালক উসমান (৪০), দেবাশীষ ও মধু গুরুতর আহত হয়। এসময় স্থানিয়রা আহতদেরকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০শয্য জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে৷ চিকিৎসাধিন অবস্থায় ওইদিন সকাল শোয়া ৮টায় ইন্টার্ণ চিকিৎসক টুম্পা মধু কর্মকারকে মৃত ঘোষনা করে৷ ভ্যান চালক উসমান হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ও দেবাশীষ প্রাথমিক চিকিৎসা নেয়।

বারোবাজার হায়ওয়ে ফাড়ির অফিসার ইনচার্জ মো.নজরুল ইসলাম সড়ক দুঘটনার বিষয়টি নিচ্চিত করেছেন।

অপরদিকে জাহিদুরের বড় ভাই নুরুল ইসলাম জোয়ার্দার জানান, বৃহস্পতিবার সকাল ছয় টার সময় চালক জাহিদুর, নিরাপত্তা প্রহরী সাইদুল ইসলাম ও বেনাপোল স্থাল বন্দরের উপ পরিচালক (প্রশাসন) আমিনুল ইসলামকে (ঢাকা মেট্রো-খ-১৪-৪৯১৬) নং অফিসিয়াল জিপ যোগে যশোর বিমান বন্দরে পৌছে দেবার জন্য রওনা হয়৷ পথিমধ্যে যশোর-বেনাপোল সড়কের শ্যামলা গাছি চৌধুরী রাইচ মিলের সামনে পৌছালে. এসময় বেনাপোল মুখি ঢাকা-কোলকাতা মৈত্রী পরিবহনের (ডব্লিউ বি-১১-১২৯৯)নং একটি কোচের সাথে মুখো-মুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থালে জিপ চালক জাহিদুরের মৃত্যু হয়৷ সাইদুল ও আমিনুল গুরুতর আহত হয়৷ এসময় স্থানিয়রা আহতদেরকে উদ্ধার করে সকাল সাড়ে ১০টায় যশোর ২৫০শয্য জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে৷ হাসপাতালে জরুরী বিভাগে ডা. মোঃ আব্দুল্লা আল মামুন জানান, আমিনূল ইসলামকে ভর্তির পর অবস্হা খারাপের কারনে তাকে ঢাকা হাসপাতালে রেফার করেছে ও নিরাপত্তা প্রহরী সাইদুল ইসলাম প্রাথমিক চিকিৎসা নেয়।

ওই সময় যশোর নাভারন হায়ওয়ে ফাঁড়ির এসআই হারুনার রশীদ জিপ চালক জাহিদুর রহমানের লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল শেষে যশোর ২৫০শয্যা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করেন৷

এদিকে হাসপাতাল সূত্রে জানাযায়, ঝিকরগাছা বাকড়া পল্লি বিদ্যুতায়ন নিয়মিত কর্মচারী মনোয়ার আলী, বৃহস্পতিবার দুপুরে বাকড়া কোমর চাঁন্দ এলাকায় বিদ্যুতের বিচ্ছিন্ন সংযোগের কাজ করছিলেন। এসময় অসাবধানতা বসত সে বিদ্যুতায়িত হয়ে খাম্বা থেকে নিচে পড়ে যায়। এতে তার মৃত্যু হয়। এসময় স্থানিয়রা তাকে উদ্ধার করে বেলা পৌনে ২টায় যশোর ২৫০শয্য জেনারেল হাসপাতালে নেয়। হাসপাতালে জরুরী বিভাগে ডা. মোঃ আব্দুল্লা আল মামুন তাকে মৃত ঘোষনা করে জানান, হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here