যশোরে প্রকাশ্যে যুবদল নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

0
56

নিজস্ব প্রতিবেদক :যশোর জেলা যুবদলের জেষ্ঠ্য সহসভাপতি বদিউজ্জামান ধোনিকে (৫২) দিনদুপুরে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার দুপুরে যশোর শহরের শংকরপুর আকবরের মোড় এলাকায় এ হত্যাকান্ড ঘটে। বদিউজ্জামান যশোর শহরের বেজপাড়া চোপদারপাড়া এলাকার বাসিন্দা। তিনি এর আগে নগর যুবদলের সভাপতি ছিলেন।

স্থানীয়রা জানায়, আজ মঙ্গলবার (১২ জুলাই) বেলা পৌনে ১২টার দিকে শহরের শংকরপুর চোপদারপাড়া আকবরের মোড়ের কাছে নিজ বাড়ির সামনে স্ত্রীকে সাথে নিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন বদিউজ্জামান ধ্বনি। এ সময় স্থানীয় সন্ত্রাসী রায়হান, রহিম, আকাশসহ ৪-৫ জন তার ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। দুর্বৃত্তরা তাকে উপর্যুপরি কুপিয়ে জখম করে ফেলে রেখে চলে যায়। স্থানীয় লোকজন ও স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসেন। হাসপাতালে আনার পর সোয়া ১২টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের চিকিৎসক ফিরোজ কবীর জানিয়েছেন, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে, যুবদলের শীর্ষ নেতার হত্যাকাণ্ডের খবরে বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ হাসপাতাল ও ঘটনাস্থলে ছুটে যান। জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপক নার্গিস বেগম ও সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু, বিএনপির খুলনা বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিতসহ নেতৃবৃন্দ হাসপাতালে যান।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফিরোজ কবির বলেন, দুর্বৃত্তদের ছুরির আঘাতে যুবদলের নেতা বদিউজ্জামানের মৃত্যু হয়েছে। কারা কি কারণে তাকে হত্যা করেছে তা তাৎক্ষণিকভাবে বলা যাচ্ছে না। দুর্বৃত্তদের আটকের জন্য পুলিশের কয়েকটি দল মাঠে রয়েছে।

কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি তাজুল ইসলাম জানিয়েছেন, পুলিশ জড়িতদের শনাক্ত ও আটকের জন্য অভিযান শুরু করেছে।

যশোর জেলা বিএনপির সদস্য সচিব সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু বলেন, প্রকাশ্য দিনদুপুরে একজন রাজনৈতিক নেতাকে হত্যা করা আইনশৃঙ্খলা অবনতির সামিল। আইনশৃঙ্খলা ঠিক রাখার বিষয়ে পুলিশের আরও কঠোর ভূমিকা রাখা উচিৎ। একইসাথে খুনিদের অবিলম্বে আটক করে শাস্তির আওতায় আনার জোর দাবি জানাচ্ছি।