যশোরে প্রকাশ্যে রাব্বি হত্যাকান্ডের ঘটনায় পাঁচ জনের নাম উল্লেখ করে বোনের মামলা

0
281

বিশেষ প্রতিনিধি : সন্ধ্যারাতে শহরের টাউন হল মাঠ সংলগ্ন এলাকায় যুবক পাপ্পা (২০) খুনের ঘটনায় পাঁচজনের নাম উল্লেখ করে কোতয়ালি থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। নিহতর বড় বোন সুমাইয়া আফরিন স্বপ্না বাদি হয়ে মামলাটি করেন। মামলার আসামীরা হচ্ছে, যশোর শহরের শংকরপুর এলাকার মেচিয়ার খোকনের ছেলে ভাইপো সাইদ,বেজপাড়ার রতনের ভাই পান্না,অজ্ঞাতনামা ঠিকানার শাওন,শংকরপুরের আব্দুর রশিদের ছেলে পারভেজ,শংকরপুরের কাদেরের ছেলে আবির সহ অজ্ঞাতনামা ৪/৫জন। হত্যাকান্ডের গত ২৪ ঘন্টায় পুলিশ জড়িত ও এজাহার নামীয় কাউকে আটক করতে পারেনি।
শহরের গাড়ীখানা রোডের ও বর্তমানে মহরের ঘোপন নওয়াপাড়া রোডের টপির বাড়ির ভাড়াটিয়া মৃত মতলেব হোসেনের মেয়ে ও সবুজ হাসানের স্ত্রী সুমাইয়া আফরিন স্বপ্না দায়েরকৃত এজাহারে বলেছেন,তার ছোট ভাই পাপ্পা হোসেনের সাথে আসামীদের পূর্ব শত্রুতা চলে আসছিল। রোববার বিকেল সাড়ে ৪ টায় ভাইপো সাইদ পাপ্পা হোসেনের মোবাইল ফোনে ফোন করে। পাপ্পা হোসেন ঘুমিয়ে থাকায় ফোনটি তার বোন স্বপ্না ধরেন। সাইদ পাপ্পা হোসেনের কথা জিজ্ঞাসাবাদ করলে ঘুম থেকে উঠে পাপ্পা হোসেন ফোন ধরে কথা বলে বাড়ি হতে বাহির হয়। পরবর্তীতে আসামীরা তাকে টাউন হল মাঠ থেকে পূর্ব শত্রুতার কারনে হত্যার উদ্দেশ্যে ধাওয়া করে। সে প্রাণে বাচার জন্য টাউন হল মাঠ মাঠের পাশে জিন্স ফ্যাশন মজনুর দোকানের সামনে আসলে আসামীরা তাকে ধরে ফেলে বুকে,পেটে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে ছুরিকাঘাত করে চলে যায়। স্থানীয় লোকজন দ্রুত উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে আনলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষনা করে। সুমাইয়া আফরিন স্বপ্নার দায়ের করা এজাহারে কোতয়ালি থানার মামলা নং ৩০ তারিখ ৬/০৩/১৭ ইং ৩০২/৩৪ পিসি। মামলাটি তদন্তর জন্য কোতয়ালি থানার অফিসার ইনচার্জ এসআই তারিকুল ইসলামকে দায়িত্ব দিয়েছেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা এজাহার নামীয় আসামীদের সনাক্ত কিংবা জড়িত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here