যশোরে প্রেমিকার আত্মহত্যার ঘটনায় প্রেমিকের নামে মামলা

0
157

নিজস্ব প্রতিবেদক :

যশোরের মনিরামপুরের কলেজছাত্রী সমাপ্তি খাতুনের আত্মহত্যায় প্ররোচণার অভিযোগে তার প্রেমিক আব্দুল আজিজ বাবুর বিরুদ্ধে মঙ্গলবার আদালতে মামলা হয়েছে। আসামি আব্দুল আজিজ বাবু চৌগাছা উপজেলার মুক্তাদাহ গ্রামের ইউনুচ আলী ড্রাইভারের ছেলে। মনিরামপুর উপজেলার সরসকাটি গ্রামের মৃত মতলেব মোড়লের ছেলে সমাপ্তির পিতা মফিজুর রহমান বাদী হয়ে পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে এ মামলা করেন। অতিরিক্ত চীফ চুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মারুফ আহমেদ অভিযোগ আমলে নিয়ে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন পবিআইকে আদেশ দিয়েছেন। মামলা সূত্রে জানা যায়, বাদী মফিজুর রহমানে মেয়ে সমাপ্তি খাতুন ঝিকরগাছা শহীদ মশিউর রহমান ডিগ্রি কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছিলেন। গত বছরের আগস্ট মাসের দিকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আসামি আব্দুল আজিজ বাবুর সাথে তার পরিচয় হয়। এক পর্যায়ে দুজনের মধ্যে প্রেমজ সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এ সময় সমাপ্তি খাতুনকে বিয়ে করার জন্য তাকে আশ্বস্ত করে আব্দুল আজিজ বাবু। সমাপ্তি খাতুনকে এ কথাও বলা হয় যে, আব্দুল আজিজ বাবুর জার্মানির ভিসা হয়ে গেছে এবং সে দ্রুত বিদেশে চলে যাবে। তাছাড়া জার্মানি যাওয়ার আগেই সমাপ্তি খাতুনকে সে বিয়ে করবে। এরই এক পর্যায়ে সমাপ্তি খাতুনকে ফুসলিয়ে আব্দুল আজিজ বাবু যশোর শহরের শংকরপুরে তার এক চাচাতো ভাইয়ের বাড়িতে নিয়ে আসে। সেখানে তাকে নানাভাবে প্রলোভন দেখিয়ে তার সাথে মেলামেশা করে আব্দুল আজিজ বাবু। তবে এরপর আব্দুল আজিজ বাবুর পরবর্তী আচারণে সন্দেহ হওয়ায় তাকে বিয়ে করার জন্য চাপ সৃষ্টি করে সমাপ্তি খাতুন। কিন্তু সে তাকে বিয়ে করতে অস্বীকার করে। আর এ নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি করলে মোবাইল ফোনে ধারণকৃত তাদের মেলামেশার ভিডিও এবং ছবি ফেসবুকে ছেড়ে দেওয়ার ভয় দেখানো হয়। এ ঘটনায় মানসিকভাবে ভেঙে পড়ে সমাপ্তি খাতুন। এরপর গত ১৬ জানুয়ারি সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ঘরের ফ্যানের সাথে গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করে জীবনের সমাপ্ত ঘোষণা করেন সমাপ্তি ।