যশোরে বহুলালোচিত ধর্ষক আব্দুল খালেকের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট

0
398

বিরামপুর অষ্টম শ্রেনী স্কুল পড়–য়া কিশোরী ধর্ষন মামলা

এম আর রকি : যশোরে বহুলালোচিত ধর্ষক আব্দুল খালেক (৫০) এর বিরুদ্ধে চার্জশীট দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কোতয়ালি মডেল থানায় কর্মরত এসআই খাদিজা খাতুন পলাতক আসামী আব্দুল খালেকের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমানীত হওয়ায় চার্জশীট দেন। ধর্ষক আব্দুল খালেক যশোর সদর উপজেলার পাগলাদাহ গ্রামের মৃত মুনছুপ মোল্যার ছেলে। ঘটনার পর হতে সে পলাতক জীবন যাপন শুরু করে। তাকে ধরিয়ে দেওয়ার জন্য যশোর পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান ৩৫ হাজার টাকা পুরস্কার ঘোষনা করেছিল।
মামলার বিবরণে জানাযায়,যশোর সদর উপজেলার পাগলা গ্রামের অষ্টম শ্রেনীতে পড়–য়া এক কিশোরী (১৪) নানার বাড়িতে থেকে লেখা পড়া করতো। গত বছর ২৬ অক্টোবর রাত আনুমানিক ৮ টায় কিশোরী তার নানা বাড়ির বারান্দায় অবস্থান কালে পাশ্ববর্তী প্রতিবেশী আব্দুল খালেক কিশোরীর মুখ চেপে ধরে নিয়ে যায়। ওই রাতে বাড়ির উত্তর দিকে কবরস্থানের পাশে ধানের জমিতে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষন করে। ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষনের পর ওই রাতে আব্দুল খালেক কিশোরীকে তার বাড়িতে নিয়ে যায়। বিষয়টি কাউকে না বলার জন্য ভয়ভীতি দেখানোর এক পর্যায় ২৭ অক্টোবর সকাল ৭ টায় কিশোরী নানা বাড়িতে এসে বিষয়টি জানিয়ে দেয়। আব্দুল খালেকের কুকৃর্তির কথা জানাজানি হয়ে গেলে আব্দুল খালেক ও তার সহযোগীরা ধর্ষিতা কিশোরীর নানা ও নানীকে হুমকী ধামকীর এক পর্যায় কিশোরীকে ওই এলাকা থেকে চলে যেতে হুমকী ধামকী দেয়। কিশোরীর পিতা মাতা বিষয়টি জেনে ঢাকা থেকে যশোরে এসে কিশোরীর মুখে শুনে ২৯ অক্টোবর কোতয়ালি মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯(১) ধারায় এজাহার দায়ের করেন। কোতয়ালি থানার মামলা নং ১৩০ তারিখঃ ২৯/১০/১৭ ইং। তৎকালীন অফিসার ইনচার্জ মো: ইলিয়াস হোসেন মামলাটি তদন্তর দায়িত্ব দেন এসআই খাদিজা খাতুনকে। তিনি ধর্ষক আব্দুল খালেককে ধরার জন্য দফায় দফায় অভিযান চালান। খালেকের স্ত্রী,মেয়েসহ আত্মীয়স্বজন অনেককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনেন আব্দুল খালেকের অবস্থান জানার জন্য। ওই সময় আব্দুল খালেককে ধরিয়ে দেওয়ার জন্য পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান পোস্টার ছেপে ৩৫ হাজার টাকা পুরস্কার ঘোষনা করেন। পুলিশের সকল অভিযান ব্যর্থ করে আব্দুল খালেক ধরার ছোয়ার বাইরে থেকে যায়। ধর্ষিতা কিশোরীর ২২ ধারা জবানবন্দি আদালতে ও সাক্ষীদের স্বাক্ষ্য গ্রহন করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। মামলার তদন্ত কার্যক্রম সম্পন্ন করে বৃহস্পতিবার আদালতের উদ্দেশ্যে চার্জশীট দাখিল করে। অভিযোগ পত্র নং ৬২২ তারিখঃ৫/৪/১৭ ইং ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here