যশোরে বোলপুর গ্রামবাসী সন্ত্রাসী কানা মোক্তার ও কাইলা ওহাবের কাছে জিম্মি

0
294

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোর সদর উপজেলার নওয়াপাড়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের বোলপুর গ্রামের অধিবাসীরা একটি সন্ত্রাসী বাহিনীর হাতে জিম্মি হয়ে পড়েছে। ওই সন্ত্রাসী বাহিনীর নেতৃত্ব দিচ্ছেন বোলপুর গ্রামের মৃ. তসীম বিশ্বাসের ছেলে মোক্তার হোসেন ওরফে কানা মোক্তার এবং মৃত মোসলেম মোল্যার ছেলে ওহাব আলী ওরফে কাইলা ওহাব। তাদের বিরুদ্ধে থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। রোববার সকালে বোলপুর গ্রামের লোকজন প্রেসক্লাব যশোরে সংবাদ সম্মেলন করেন। লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বোলপুর গ্রামের শাহাজাহান কবির বাবু। এসময় উপস্থিত ছিলেন জিয়াউর রহমান, কামরুজ্জামান, আনিসুর রহমান, আনিসুজ্জামান প্রমূখ।
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়েছে, কানা মোক্তার ও কাইলা ওহাব এলাকায় মাদক ব্যবসা, চাঁদাবাজি, লুটতরাজ ও সন্ত্রাসী কর্মকা- চালিয়ে আসছে। সম্প্রতি বোলপুর গ্রামের বাসিন্দা এবং কপোতক্ষ লাইন্স চক্ষু হাসপাতালের কর্মচারী কামাল হোসেন মাদক ব্যবসার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেন। তারই জের ধরে গত মঙ্গলবার কামাল হোসেন অফিস শেষে বাড়ি ফিরছিলেন। পথিমধ্যে মধুগ্রামের ইটভাটার নিকট পৌছুলে কানা মোক্তার ও কাইলা ওহাবের নেতৃত্বে ইকরাম বিশ্বাস, শামীম, আব্দুল হক, জিনাবুল ইসলাম, পারভেজ, ইমরান তাকে হাতুড়ি পেটা করে। হত্যার উদ্দেশ্যে তাকে মারপিট করে ৮৫ হাজার টাক ছিনিয়ে নেয়। তার চিৎকারে স্থানীয় ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে দেয়। কিছুদিন আগে মুক্তিযোদ্ধা সামসুর রহমানের ছেলে গোলাম রসুলকে তারা মারপিট করে। লিছুর সময় বোলপুর গ্রামের লিছু ব্যবসায়ীদের কাছে তারা ৫লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। এতে প্রতিবাদ করতে গেলে জহির মোল্যার ছেলে সাইদুলকে মেরে হাত ভেঙ্গে দেয়। এছাড়া গ্রামের নারী ও যুবতীদের নানা ধরণের পাশবিক নির্যাতন চালিয়ে আসছে। প্রতিবাদ করতে গেলে তাদেরকে মারপিট করে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করছে। ওই চাঁদার টাকা না দিলে পুলিশ দিয়ে বিভিন্ন মামলায় ধরিয়ে দিচ্ছে। তাদের অত্যাচারে অনেক সংখ্যালঘু এলাকা ছেড়ে পালিয়ে গেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here