যশোরে মাঠ থেকে উদ্ধার অজ্ঞাত লাশটি কিশোর শ্রমিক আশার

0
95

বিশেষ প্রতিনিধি : ঝিকরগাছার পায়রাডাঙ্গা গ্রামের উদ্ধার অজ্ঞাত লাশটি যশোর সদর উপজেলার কচুয়া ইউনিয়নের নরসিংহকাঠি গ্রামের বাক্কার আলী মোল্যার ছেলে ইলিয়াস হোসেন আশার (১৫)। আজ শুক্রবার সকালে তার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। শ^াসরোধে হত্যা করা হলেও তার শরীরে বিভিন্ন আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।
নিহতের স্বজনরা জানান, আশা ঝুমঝুমপুরের ডানলাপ কারখানায় কাজ করতো। ওই কারখানায় কাজ করে ঝিকরগাছা উপজেলার পায়রাডাঙ্গা গ্রামের স্বাধীন নামে এক যুবক।
বৃহস্পতিবার বিকেলে স্বাধীন আশাকে নিয়ে তার বাড়িতে বেড়াতে যায়। বেড়াতে যাওয়ার আগে আশা তার মাকে জানিয়ে যায়। রাত ৮টার দিকে তার আশার মোবাইলে যোগাযোগ করলে তার ফোন বন্ধ পায়। এরপর থেকে তারা আশাকে খুঁজতে থাকে। রাতভর না পেয়ে সকালে তারা বের হয়।
এর মধ্যে পায়রাডাঙ্গা গ্রামে মাঠের মধ্যে অজ্ঞাত লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা ছবি তুলে ফেসবুকে দেয়। আর এসময় ফেসবুকে ছবি দেখে আশার স্বজনরা ঝিকরগাছা থানার এসআই রিয়াজের সাথে যোগাযোগ করেন। এসআই রিয়াজ ইতোপূর্বে যশোর সদর উপজেলার চানপাড়ায় কর্মরত থাকলে আশার স্বজনদের সাথে যোগাযোগ ছিল। সেই সূত্রে এসআই রিয়াজ আশার স্বজনদের নিয়ে ঘটনাস্থলে যান এবং আশার লাশ সনাক্ত করেন।এসময় নাভারণ সার্কেলের এএসপি জুয়েল ইমরান, ঝিকরগাছা থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাকসহ অন্যান্য পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে ছুটে যান।
লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করেন।
স্থানীয় যুবক আলমগীর হোসেন জানান, নিহত আশার ডান হাতে, গলায়, ঠোঁঠে ও কপালে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। শ^াসরোধে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে পুলিশও ধারনা করেছেন।
ঝিকরগাছা থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক জানান, আশা পায়রাডাঙ্গা এলাকায় বেড়াতে যায়। শ^াসরোধে হত্যা করা হতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে। রিপোর্ট না আসলে কিছুই বলা যাবে না । হত্যার সাথে জড়িত থাকার সন্ধেহ স্বাধীন ও মিরাজ নামে দুই যুবককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here