যশোরে মুক্তিপণ দাবিতে অপহরণ করার দু’ শিশু পাঁচদিন পর উদ্ধার ॥গ্রেফতার-৩

0
591

বিশেষ প্রতিনিধি : যশোর খোলাডাঙ্গা এলাকা থেকে দুই শিশু অপহরণের ৫দিন পর গোপালগঞ্জ জেলা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। কোতয়ালি থানার এসআই অরুন কুমার দাসসহ পুলিশের একটি টিম অভিনব কায়দায় শিশু রোহান ও সোনিয়াকে উদ্ধার এবং অপহরণের প্রধান নায়ক বিপ্লব মোল্যা তার স্ত্রী তন্নী ও বিপ্লব মোল্যার মাতা মোছাঃ মরিয়ম বেগম। শনিবার সকাল ১০ টায় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কোতয়ালি মডেল থানার এসআই অরুন কুমার দাস,এসআই কাইয়ূম মুন্সীসহ একদল পুলিশ গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার বঙ্গবন্ধু পৌর পার্কের মধ্যে থেকে টাকা পয়সা লেনদেনের এক পর্যায় বিপ্লব মোল্যাকে গ্রেফতার ও শিশু ছেলে রোহান ও সোনিয়াকে উদ্ধার করে। পরে তার স্ত্রী ও মাতাকে গ্রেফতার করে। এর আগে গত বুধবার বিপ্লব মোল্যার শ্বশুর তুহিন বিশ্বাসকে গ্রেফতার করে। যশোর সদর উপজেলার খোলাডাঙ্গা সরদার পাড়ার আব্দুস সালামের শিশু ছেলে রোহান (৩) ও ভাইরা ভাই আবুল কাশেমের মেয়ে সোনিয়া (৭)কে গত মঙ্গলবার সকালে আব্দুস সালামের বাড়ি হতে কৌশলে অপহরণ করে মুক্তিপণ ২লাখ ৪০ হাজার টাকা দাবি করে। টাকা মোবাইল বিকাশের মাধ্যমে পাঠানোর কথা জানিয়ে দেয়। আব্দুস সালাম বাদি হয়ে ভাইরাভাই তুহিন বিশ্বাসের জামাতা গোপালগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার মেরী গোপীনাথপুর গ্রামের তাকের মোল্যার ছেলে বিপ্লব,মেয়ে তন্নি বেগম, ভাইরাভাই তুহিন বিশ্বাস ও জামাতা বিপ্লবের মাতা মরিয়ম বেগমের বিরুদ্ধে কোতয়ালি থানায় বুধবার এজাহার দায়ের করে। মামলার তদন্তর দায়িত্ব পান এসআই অরুন কুমার বিশ্বাস। তিনি কৌশল নিয়ে সাথে এসআই কাইয়ূম মুন্সীকে চাচা সাজিয়ে ও নিজেকে সাগর চেয়ারম্যান বলে বিপ্লব মোল্যার সাথে সর্বক্ষনিক মোবাইলে যোগাযোগ রক্ষা করে। বিপ্লব মোল্যার মুক্তিপণের টাকা দিতে রাজী হয়ে শনিবার সকালে কৌশল নিয়ে গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু পৌর পার্কের মধ্যে এসআই অরুন কুমার দাস সাথে চাচা সাজিয়ে কাইয়ূম মুন্সীকে সাথে নিয়ে টাকা দিতে গিয়ে বিপ্লব মোল্যাকে গ্রেফতার করে। পরে শিশু দু’জনকে উদ্ধার করে। পরে বিপ্লব মোল্যার স্ত্রী তন্নি ও মাতা মরিয়ম বেগমকে গ্রেফতার করে। শনিবার গ্রেফতারকৃত আসামীদের আদালতে সোপর্দ করেছে। উদ্ধারকৃত শিশু দু’জনকে আদালতে উপস্থিত করার প্রস্তুতি নিয়েছে এ রিপোর্ট লেথা পর্যন্ত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here