যশোরে শিক্ষকের পিটুনিতে ৫ ছাত্র হাসপাতালে

0
384

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোর সদর উপজেলার ছাতিয়ানতলা চুড়ামনকাটির মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল হকের চাঁদাবাজির প্রতিবাদ করায় ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক, সহকারি শিক্ষক পাঁচ শিক্ষার্থীকে বেধড়ক পিটিয়েছে। এ ঘটনায় ক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা প্রধান শিক্ষককে লাঞ্ছিত করেছে। উভয় ঘটনায় ৫জন ছাত্র এবং প্রধান শিক্ষক হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। শিক্ষার্থীদের মারপিট করায় স্থানীয় অভিভাবকদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। আহত শিক্ষার্থীরা হলো, ছাতিয়ানতলা চুড়ামনকাটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্র ও যশোর সদর উপজেলার চুড়ামনকাটি সরদার বাগডাঙ্গা গ্রামের গোলাম মোস্তফা’র ছেলে হাবিবুর রহমান, খোঁজারহাট এলাকার আসাদুল ইসলামের ছেলে ওই স্কুলের ১০ম শ্রেণির ছাত্র রিংকু, খামারবাগডাঙ্গা গ্রামের মহিদুল ইসলামের ছেলে ১০ শ্রেণির ছাত্র আলআমিন, চুড়ামনকাটি কু-ুপাড়ার শচীন দে ছেলে ৯ম শ্রেণির ছাত্র শুভ, ঘোনার আহম্মদ আলীর ছেলে ১০ শ্রেণির ছাত্র জহির এবং প্রধান শিক্ষক ফজলুর রহমান। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।
আহত ছাত্ররা জানান,স্কুলের সহকারি প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল হক প্রায় ছাত্রদের পরীক্ষায় পাশ করার বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে টাকা দাবি করেন। তার দাবিকৃত টাকা না দিলে শিক্ষার্থীদের ফেল করা এবং টিসি দেয়ার হুমকি দেয়। ইতোপূর্বে তিনি রিংকুর কাছ থেকে ৯শ টাকা নিয়েছে। সম্প্রতি ১০ম শ্রেণির ছাত্র আল আমিনের কাছে মোবাইলে ৫ হাজার টাকা দাবি করে। ওই টাকা না দেয়ায় রোববার স্কুলে ক্লাশ চলাকালীন মোজাম্মেল হক আল আমিন কে হুমকি দেয়। তখন ক্লাশ থেকে বের হয়ে হাবিবুর , রিংকু, আলআমিন, শুভ, জহিরসহ কয়েকজন ছাত্র প্রধান শিক্ষক ফজলুর রহমানের কাছে অভিযোগ করেন। এসময় প্রধান শিক্ষক সহকারি শিক্ষককে ডেকে অফিসে নিয়ে আসেন। সেখানে দরজা জানালা বন্ধ করে দুইজনে ওই ছাত্রদেরকে বেধড়ক মারতে থাকেন। ছাত্রদের চিৎকারে ক্লাশ থেকে অন্যান্য শিক্ষকরা ছুটে এসে দরজা জানালা খুলে দিয়ে ছাত্ররা বের হয়ে আসেন। স্কুলের অন্যান্য শিক্ষার্থীরা তাদেরকে নিয়ে যশোর জেনারেল হাসপাতালে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে নিয়ে আসেন। হাসপাতালের জরুরী বিভাগের ডাক্তার ইউসুফ আলী তাদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন। তবে, ৭ম শ্রেণির ছাত্র হাবিবুর রহমানের অবস্থা খারাপ হওয়ায় তাকে ওয়ার্ডে পাঠিয়ে দেন।
এদিকে প্রধান শিক্ষক ফজলুর রহমান শিক্ষার্থীদের মারপিট করার সংবাদ সকল ছাত্রদের মধ্যে পৌছুলে তারা স্কুল শেষে চুড়ামনকাটির বাজারের কলোনীর সামনে অবস্থান নেয়। প্রধান শিক্ষক বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে ঝিনাইদহগামী গড়াই গাড়িতে উঠলে কলোনীর সামনে ছাত্ররা তাকে গাড়ি থেকে নামিয়ে লাঞ্ছিত করে। পরিস্থিতি সামাল দেয়ার জন্য প্রধান শিক্ষক ফজলুর রহমান বিকাল ৫টার দিকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। বিষয়টি জানাজানি হলে যশোর কোতয়ালি থানার পুলিশ ঘটনাস্থল এবং হাসপাতালের আহতের সাথে কথা বলেন।
এদিকে আহত শিক্ষার্থীরা জানান, যশোর সদর উপজেলার চুড়ামনকাটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান মুন্নার আত্মীয় সহকারি প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল হক। তিনি ক্ষমতাসীন দলের প্রভাব খাটান। শিক্ষার্থীদের প্রকাশ্যে এবং মোবাইলে হুমকি দেন। যা আহত শিক্ষার্থীদের মোবাইলে রেকর্ড রয়েছে।
এদিকে প্রধান শিক্ষক ও সহকারি প্রধান শিক্ষক ছাত্রদের মারপিট করার ওই স্কুলের অন্যান্য শিক্ষকরা এবং এলাকাবাসী ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here