যশোরে শিক্ষার্থীর হাতে প্রধান শিক্ষক প্রহৃতর ঘটনায় ৮ জনের নামে মামলা

0
213

বিশেষ প্রতিনিধি : যশোর চুড়ামনকাটি ইউনিয়নের ছাতিয়ানতলা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফজলুর রহমানকে মারপিটের অভিযোগে ওই বিদ্যালয়ের ৪ শিক্ষার্থীসহ ৮জনের বিরুদ্ধে কোতয়ালি থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার আসামীরা হচ্ছে, যশোর সদর উপজেলার চুড়ামনকাটি গ্রামের মোফাজ্জেল হোসেনের ছেলে মেহেদী হাসান রুনু,আইয়ূব হোসেনের ছেলে শিমুল হোসেন,আব্দুল আলিমের ছেলে সুমন হোসেন,বাগডাঙ্গা গ্রামের গোলাম মোস্তফার ছেলে হাবিবুর রহমান,বাগডাঙ্গা গ্রামের মহিদুল ইসলামের ছেলে আল আমিন হোসেন,চুড়ামনকাটি গ্রামের শচীন দে’র ছেলে শুভ কুমার দে,সদর উপজেলার ঘোনা গ্রামের আসাদুল ইসলামের ছেলে তামিম হোসেন রিংকু ও একই গ্রামের আহম্মদ আলীর ছেলে শাকিব হোসেন।
চুড়ামনকাটি মাধ্যামিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য সদর উপজেলা ছাতিয়ানতলা গ্রামের মৃত আজিম মন্ডলের ছেলে আনোয়ার হোসেন বাদি হয়ে দায়েরকৃত এজাহারে বলেছেন, গত রোববার ৩০ এপ্রিল সকাল সাড়ে ৯ টায় উক্ত বিদ্যালয়ের হাবিবুর রহমান,আল আমিন হোসেন,শুভ কুমার,তামিম হোসেন রিংকু শাকিব স্কুল ফাঁকি দিয়ে স্কুল সংলগ্ন রেললাইন এলাকায় নেশাকরা ও তাস খেলছিল। প্রধান শিক্ষক ফজলুর রহমানসহ অন্যান্য শিক্ষক জানতে পেরে ওই দিন উক্ত শিক্ষার্থীকে স্কুলে ফিরিয়ে এনে বুঝিয়ে তার অভিভাবকদের খবর দিয়ে তাদের হাতে তুলে দেয়। এ ঘটনার পর প্রধান শিক্ষক ফজলুর রহমান বেলা ৩ টার পর গড়াই বাস যোগে ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার আড়পাড়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি যাচ্ছিল। বেলা সাড়ে ৩ টায় বাসটি সদর উপজেলার কাজী নজরুল ইসলাম কলেজের আগে চুড়ামনকাটি কলোনী পাড়া মেইন রাস্তায় পৌছালে উক্ত সন্ত্রাসী ও শিক্ষার্থীরা বাস থামিয়ে শিক্ষক ফজলুর রহমানকে বাস থেকে জোর পূর্বক নামিয়ে নিয়ে বাগানের মধ্যে নিয়ে রড ও বাঁশের লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ীভাবে মারপিট শুরু করে। স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে তাকে ছেড়ে দৌড়ে পালিয়ে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় ফজলুর রহমানকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here