যশোরে সন্ত্রাসী বিষে হত্যায় কাহিনী

0
182

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরে সন্ত্রাসী আমিনুর রহমান বিষে হত্যা মামলার আসামিরা শনাক্ত হয়ে গেছে। এরমধ্যে আদালতে দেয়া সাগরের জবানবন্দিতে দুই রাজনৈতিক ব্যক্তির নাম উঠে এসেছে বলে জানা গেছে। ২৬ ডিসেম্বর সাগর আদালতে এ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছিলো।

জবানবন্দিতে আটক সাগর উল্লেখ করেছেন, তিনি এক সময় বিষের সাথে চলাফেরা করতো। এক মাস আগে তিনি নারাঙ্গালী গ্রামের আলী আহমেদের জমিতে পুকুর খনন করার কাজ নেন। পুকুর থেকে বালি উত্তোলন করে বিক্রি করা টাকার মধ্যে থেকে ১ লাখ টাকা দেবে মালিককে। ঘটনার ১৪-১৫দিন আগে তিনি নারাঙ্গালীর ওই জমিতে গিয়ে জানতে পারে বিষে তার বালি উত্তোলনের পাইপ ভেঙে দিয়েছে। এ পুকুর থেকে বালি বিক্রির টাকার ৪০ হাজার টাকা বিষে দাবি করে। তিনি তাকে ৫ হাজার টাকা দেয়। পরে আরবপুরের একজনের কাছে পাইপ ভাঙার বিষয়ে জানিয়ে বলে, তাকে ৫ হাজার টাকা দিয়েছি। কিন্তু সে আমার কাছে আরও ৩৫ হাজার টাকা দাবি করছে। তাকে বলে, দল চালাতে গেলে খরচ লাগে। বিষের অনেক ছেলেপিলে রয়েছে। তাদের খরচ দিতে হয়। তুমি তাকে বাকি ৩৫ হাজার দিয়ে দিবে। ওই ব্যক্তি বিষের শেল্টারদাতা ছিল।

বাকি ৩৫ হাজার টাকা না পেয়ে ২০ ডিসেম্বর সকালে বিষে ৮-১০জনকে সাথে নিয়ে নারাঙ্গালীতে গিয়ে তাকে বেধড়ক মারপিট করে। জমির মালিকের ছেলে সাইফুল ইসলামকেও তারা মারপিট করেছিল। তিনি বিষেদের মারপিটের কারণে অজ্ঞান হয়ে পড়েছিলেন। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার। এরপর তিনি তার সঙ্গী গন্নাকাটা নাঈমকে নিয়ে আরবপুরে যাচ্ছিলেন। পথে এক আওয়ামী লীগ নেতার সাথে তাদের দেখা হয়। তিনি তাকে বিষয়টি অবহিত করে মিটিয়ে দিতে বলেন। তিনি প্রথমে বিষেকে মারতে বলে পরে মীমাংসা করে নিতে বলেছিলেন। তিনি তাকে ফোন করে মারপিটের বিষয়ে নালিশ করেন এবং তার কাছ থেকে জানতে পারেন বিষে আরবপুর মোড়ে আছেন। এরপর তিনি নাসিরের কাছে ফোন করে তাকে ধর্মতলায় আসতে বলেন। পরে নাসির, ওয়াসিফ ও রাকিব ধর্মতলায় আসেন। তাদের কাছে চাকু ছিলো। তিনি তাদেরকে সাথে নিয়ে আরবপুর মোড়ে যেয়ে দেখেন বিষে ও বাপ্পা হোটেলের মধ্যে বসে আছেন। তিনি সেখানে গিয়ে তাকে ১৫ হাজার টাকা নিয়ে মিটমাট করে নিতে বলেন বিষেকে। বিষে ওই টাকা নিতে অস্বীকার করে এবং পারলে আদায় করে নিবে বলে হুমকি দেন। এ নিয়ে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে রাকিব চাকু দিয়ে বিষেকে আঘাত করেন। পরপরই গন্নাকাটা নাঈম চাকু দিয়ে বিষেকে কয়েকটি আঘাত করে। এরপর পর তারা দ্রুত সেখান থেকে চলে যায় বলে জানিয়েছেন।