যশোরে স্কুল পড়ুয়া তরুনী গণধর্ষণের মূল হোতা ছদ্দবেশী মানিক গ্রেফতার

0
293

বিশেষ প্রতিনিধি : যশোরে স্কুল পড়–য়া দশম শ্রেণি ছাত্রীকে কৌশলে অপহরণের পর ধর্ষণ মামলার মূল আসামি মানিক হোসেনকে (২৪) নিজেকে আড়াল করে রাখতে পারেনি। পাপ তাকে পুলিশের হাতে গ্রেফতার করতে বাধ্য করেছে। জেলা গোয়েন্দা শাখা সূত্রে জানাগেছে,মঙ্গলবার রাতে মানিক হোসেনকে উপশহর এলাকা থেকে জনতা ধরে পিটুনি দিয়ে পুলিশে দেয় বলে ডিবি পুলিশ জানিয়েছে। আটক মানিক হোসেন উপশহর বিরামপুর গ্রামের আমির হোসেনের ছেলে।
ডিবি ওসি ইমাউল হক সাংবাদিকদের জানান, মানিকই স্কুলছাত্রী অপহরণের পর গণধর্ষণ মামলার মূল আসামি। মানিক পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে গত ২২ এপ্রিল সে মাগুরার একটি মেস থেকে তাইজেল নামে এক ব্যক্তির ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন চুরি করে। তাইজেলের মোবাইলের মেমোরি কার্ডে ওই স্কুলছাত্রীর অসংখ্য ছবি ছিল। মেমোরি কার্ড ও ফোন নাম্বার ব্যবহার করে সে ওই স্কুলছাত্রীকে প্রতারিত করে। নিজের জম্মদিন সেলিব্রেট করার প্রস্তাব দিয়ে সে কৌশলে ওই ছাত্রীকে অপহরণ করে যশোরে নিয়ে আসে। এরপর মানিক মেয়েটিকে শহরের আরএস আবাসিক হোটেলের ৫১১ নম্বর রুমে আটকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরে ২৫ এপ্রিল শহরের রেলগেটে হোটেল শাহরিয়ারের ১৫ নম্বর কক্ষে নিয়ে তাকে দ্বিতীয় দফা ধর্ষণ করা হয়। এ খবর পেয়ে ডিবি পুলিশ হোটেল থেকে দুইজনকে আটক করে। পরে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ঘটনার সঙ্গে যুক্ত সন্দেহে আরো দশজনকে আটক করা হয়।
দশজনকে আটকের পর ডিবির পক্ষ থেকে সাংবাদিকদের ব্রিফ করা হয়। আটক তরুণেরা হলো, মাগুরার মালঞ্চি গ্রামের তাইজেল ইসলাম, চৌগাছার ফুলসারা গ্রামের মুন্না হোসেন, বেজপাড়া আনসার ক্যাম্প এলাকার আশিকুর রহমান সাগর, পূর্ব বারান্দীপাড়ার শাহরিয়ার হাসনাত, বকচর মসজিদপাড়ার রাশেদুল ইসলাম হৃদয়, শহরতলীর হামিদপুরের ফরিদুজ্জামান, শার্শার পাকশিয়া গ্রামের সজীব রায়হান, বেনাপোল পোর্ট থানার গাজীপুরের হোটেলের কর্মচারী ইব্রাহিম, শহরের রায়পাড়ার ওসমান সরদার এবং সদরের রহমতপুর গ্রামের আহম্মদ আলী।
উল্লেখ্য, তরুনীর দায়ের করার অভিযোগে যশোর কোতয়ালি মডেল থানায় মামলা করা হয়। মামলাটি তদন্ত করছে ডিবি পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here