যশোর অনুর্ধ-১৮ জেলা ফুটবল দলের বিরুদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগ এনে প্রটেস্ট করেছে ঝিনাইদাহ জেলা

0
443
অবৈধ খেলোয়াড় জাহিদ হাসান জনির জাতীয় পরিচয় পত্র।

ডি এইচ দিলসান : যশোর অনুর্ধ-১৮ জেলা ফুটবল দলের বিরুদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগ এনে প্রতিবাদ জানিয়েছেন ঝিনাইদাহ ফুটবল এ্যাসোসিয়েশন। সোমবার গোপালগঞ্জ মাঠে অনুর্ধ-১৮ জাতীয় চ্যাম্পিয়ন শীপে তারা যশোর ২-০ গোলে পরাজিত করেও ১০ হাজার টাকা প্রদান করে প্রোটেস্ট করছে বলে নিশ্চিত করেছেন ম্যাচ কমিশনার মুনছুর আজাদ।

মুনছুর আজাদ বলেন, অবৈধ খেলোয়াড় খেলানোর অভিযোগে তারা প্রোটেস্ট করেছে।
জানা গেছে যশোরের কেশবপুর উপজেলার ৯ নং ওয়ার্ডের আমজাদের ছেলে জাহিদ হাসান নাজিমের নাম এবং জন্ম নিবন্ধন নাম্বার(১৯৯৯৪১২৩৮০৯০২৬৫৬৭) ব্যাবহার করে তার স্থলে খেলেছেন যশোর বিঞ্জান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্পোর্টস বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র জাহিদ হাসান জনি। জনি যশোর ছাতিয়ানতলা চুরামনকাঠি এলাকার আব্দুল জলিলের ছেলে। জাতীয় পরিচয় পত্র (নং-১৯৯১৪১১৪৭২৯০০০০১০) অনুয়ায়ী তার বয়স ২৫ বছর। সে ২৫ বছর বয়সে অনুর্ধ-১৮ চ্যাম্পিয়ন শীপে খেলার দায়ে ঝিনাইদাহ জেলা প্রটেস্ট করেছে বলে জানা গেছে।
এ ব্যাপারে জাহিদ হাসান জনির সাথে কথা বললে তিনি বলেন, আমি লিগাল ওয়েতে খেলেছি, অনুর্ধ-১৮ খেলাতে তিনি ২৫ বছর বয়সী হয়েও কি ভাবে লিগাল আছেন জানতে চাইলে তিনি আর কোন কথা বলতে রাজি হননি।
এ ব্যাপারে যশোর জেলা দলের কোচ হজরত আলী বলেন, এই জালিয়াতির জন্য দায়ী ফেডারেশন, তারা যদি বেশি বয়সী খেলোয়াড় খেলতে দেয় তাহলে আমাদেও কি দোস। তিনি বলেন, আমি কোচ হিসেবে তো আর কোন খেলোয়াড়কে বাদ দিতে পারি না।
এ ব্যাপারে যশোর জেলা ফুটবল এ্যাসোসিয়েশনের সহ সভাপতি শুকুর আলী বলেন, সভাপতি একাই সব করেন, কবে টিম গেছে, কারা কারা গেছে আমরা কিছুই জানি না। তিনি বলেন, অবৈধ খেলোয়াড় নিয়ে মাঠে নামালে তো প্রোটেস্ট আসবেই। তিনি বলেন, আমরা সভাপতির সাথে নেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here