যশোর আঞ্চলিক পাসপোর্ট সেবা সপ্তাহের সমাপনী সরকারের কোষাগারে ৩৮লাখ ৮২ হাজার ৭শ’ টাকা জমা

0
248

নিজস্ব প্রতিবেদক : পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান বলেছেন,এক ছাতার নীচে পাসপোর্টের সকল সেবা প্রদান এক প্রসংশনীয় উদ্যোগ। পাসপোর্ট সংক্রান্ত পুলিশী রিপোর্টে হয়রানী হলে আমাকে জানালে এর ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। দেশের প্রতিটি নাগরিকের পাসপোর্ট থাকাটা বিশেষ প্রয়োজন। সরকার ইতিমধ্যে ডিজিটাল নিয়মে পাসপোর্ট প্রদানে যে উদ্যোগ গ্রহন করেছেন তা দৃষ্টান্ত রাখে। গতকাল বৃহস্পতিবার সপ্তাহব্যাপী পাসপোর্ট সেবার সমাপনী দিনে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখছিলেন।

পাসপোর্ট নাগরিক অধিকার,নিঃস্বার্থ সেবাই অঙ্গীকার এ শ্লোগান সামনে রেখে সেবা সপ্তাহের সমাপনী অনুষ্ঠান বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস যশোরের উপ-পরিচালক মো: জামাল হোসেনের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন,এনএসআইয়ের উপ-পরিচালক মো: নাছির গাজী। সভাপতির বক্তব্যে উপ-পরিচালক জামাল হোসেন বলেন, পাসপোর্ট সেবা সপ্তাহে আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস যশোর হতে সপ্তাহব্যাপী নাগরিকগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে পাসপোর্ট সেবা নিতে এসেছেন তার জন্য আমরা অভিভূত। সেবা সপ্তাহের পরবর্তী সময়েও একাধিক হেল্পডেক্সের মাধ্যমে পাসপোর্ট সেবা অব্যাহত থাকবে বলে ঘোষনা দেন। তিনি আরো বলেন, গত ২৬ ফেব্রুয়ারী রোববার থেকে ২ মার্চ পর্যন্ত সেবা সপ্তাহ চলাচালীন জনগণকে অনলাইনে পাসপোর্ট ফরম পূরণে উৎসাহ প্রদানের অংশ হিসেবে অনলাইনে পাসপোর্টের ফরম পূরণে সহযোগীতা করা হয়,অনলাইনের মাধ্যমে ব্যাংকে ফি’র টাকা জমা দেওয়ার জন্য বুথ স্থাপন করা হয়,ডাটা,এট্রি,ছবি তোলা ও পাসপোর্ট বিতরণের জন্য নারী ও পুরুষের জন্য আলাদা ব্যবস্থা রাখা হয়,অসুস্থ্য ও প্রবীণ ব্যক্তিদের জন্য দ্রুত সেবা দেওয়ার আলাদা ব্যবস্থা, আর্ন্তজাতিক কুরিয়ার সার্ভিস ফেডেক্সের সাথে চুক্তি সম্পাদিত হওয়ায় এখন থেকে বিদেশে অবস্থানরত প্রবাসীরা সাত দিনের মধ্যে তাদের পাসপোর্ট হাতে পাবেন,পাসপোর্ট প্রত্যাশীকে আন্তরিকভাবে অত্রাফিসে আমন্ত্রণ জানানো, এমআরপি আবেদনপত্র বিতরণসহ পরামর্শ প্রদান করা হয়,একাধিক হেল্পডেক্স এর মাধ্যমে পাসপোর্টের প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান। এ সময়ের মধ্যে আগত পাসপোর্ট প্রত্যাশী নাগরিকগণের পুরণকৃত ফরম যাচাই-বাছাই করে সংশোধনসহ দিক নিদের্শনা প্রদান করা,পাসপোর্ট সপ্তাহ চলাকালে ১১৬৫টি নুতন,পুনঃপ্রদান ও অফিসিয়াল আবেদনপত্র জমা করা,১০০৫টি জমাকৃত আবেদন সমূহ পুলিশ ভেরিফিকেশনের জন্য স্ব-স্ব এসবি/ডিএসবি দপ্তরে প্রেরণ,১১০৭টি অনুকুল পুলিশ প্রতিবেদন পাওয়ার পর আবেদনসমূহ যাচাই-বাছাইয়ের পর তা এসবি মডিউলে পাঠানো হয়। এই সময়ের মধ্যে সরকারি কোষাগারে পাসপোর্ট ফি বাবদ ৩৮লাখ ৮২হাজার ৭শ’ টাকা রাজস্ব জমা হয়েছে।এছাড়া,পাসপোর্ট সংক্রান্ত সমস্যার সমাধান করা হয় ১৩০টি ও ১৮শ পাসপোর্ট বিরতণ করা হয়। সমাপনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের উপ-সহকারী পরিচালক মো: নাজমুল আহসান হাবীব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here